জার্মানিতে ডানপন্থি রাজনৈতিক দলের নিজস্ব ‘নিরাপত্তা বাহিনী′! | বিশ্ব | DW | 04.01.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মানিতে ডানপন্থি রাজনৈতিক দলের নিজস্ব ‘নিরাপত্তা বাহিনী'!

জার্মানির আমব্যর্গ শহরে শরণার্থীদের হামলার ঘটনার পর সেখানকার ‘নিরাপত্তা' নিশ্চিত করতে নিজস্ব পাহারার ব্যবস্থা করেছে বলে জানিয়েছে ডানপন্থি রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনপিডি)৷

তবে পুলিশ বলছে শহরে এ ধরণের কোন নিরাপত্তা বাহিনীর উপস্থিতি তাদের চোখে পড়েনি৷

কোন রাজনৈতিক দলে পক্ষ থেকে এ ধরণের নিরাপত্তা পাহারা বসানো অবৈধ উল্লেখ করে পুলিশ জানিয়েছে, ‘‘যদি এ ধরণের কাজে কেউ যুক্ত থাকে তবে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে৷''

এনপিডি তাদের ফেসবুক পাতায় দলটির নিরাপত্তাবাহিনীর ছবি পোস্ট করেছে৷ ছবিতে দেখা গেছে লাল পোশাক পরিহিত একদল লোক আমব্যর্গ শহরের রাস্তা ধরে হেঁটে যাচ্ছেন৷ এ সময় তাঁদের জামায় ‘আমরা নিরাপত্তা নিশ্চিত করছি' স্লোগান লেখা ছিল৷

দলটির একজন মুখপাত্র ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমব্যর্গ শহরে চার-পাঁচজন সদস্যের দু'টি দল শহরের নিরাপত্তা রক্ষায় কাজ করছে৷ তাঁদের উদ্দেশ্য হলো শহরের নিরাপত্তার বিষয়ে জনগণকে আশ্বস্ত করা৷'' তিনি জানান, তাদের ‘নিরাপত্তা বাহিনীর' সদস্যদের কাছে কোন অস্ত্র ছিল না৷ তারা শুধু শহরের বিভিন্ন অংশে টহল দিচ্ছিল৷

এদিকে আমব্যর্গ পুলিশের মুখপাত্র টোমাস স্মিড ডয়চে ভেলেকে জানান, এনপিডি'র ফেসবুক পোস্টটির বিষয়টির দিকে তারা লক্ষ্য রাখছেন৷ পুলিশ রাস্তায় কাউকে এভাবে টহল দিতে দেখেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন কেউ যদি আইন নিজের হাতে তুলে নেয় তাহলে তাকে শাস্তির আওতায় আনা হবে৷

এদিকে এনপিডি বলছে দেশের বিদ্যমান ‘স্বাধীভাবে চলাফেরার অধিকার' বিষয়ক আইন অনুযায়ী এ ধরণের কাজ তারা করতে পারে৷

গত শনিবার রাতে কয়েকজন শরণার্থী আমব্যর্গ শহরে পথচারীদের উপর হামলা চালায় এবং তাঁদেরকে লাঞ্ছিত করে৷ এ ঘটনায় ১২ জন আহত হয়েছে৷ আফগানিস্তান ও ইরান থেকে আসা এ শরণার্থীদের বয়স ১৭ থেকে ১৯ বছরের মধ্যে যারা ঘটনার সময় কিছুটা মাতাল ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷ তাদেরকে ইতিমধ্যে আটক করা হয়েছে৷

এ হামলার ঘটনা শরণার্থী বিষয়ে চলমান বিতর্ক আরো উস্কে দিয়েছে৷ জার্মানির কট্টর ডানপন্থি রাজনৈতিক দল অল্টার্নেটিভ ফর জার্মানি (এএফডি) ঐ হামলার ঘটনায় তাদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে৷ দলটির বাভারিয়া রাজ্যের সংসদীয় দলের নেতা কাটরিন এবনের-স্টাইনার বলেন, ‘‘এ ধরণের হামলা থেকে স্থানীয় জনগণকে রক্ষা করতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া উচিত৷'' পাশাপাশি আশ্রয়ের আবেদন নাকচ হওয়া সব শরণার্থীকে দ্রুত নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর দাবিও জানিয়েছেন তিনি৷ 

চেজ ভিন্টার/আরআর

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন