‘জার্মানিতে উগ্র দক্ষিণপন্থিদের তাণ্ডব গ্রহণযোগ্য নয়′ | বিশ্ব | DW | 30.08.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

‘জার্মানিতে উগ্র দক্ষিণপন্থিদের তাণ্ডব গ্রহণযোগ্য নয়'

জার্মানিতে বিদেশি বিদ্বেষের ঘটনাবলির ফলে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন৷ পুলিশের ভূমিকা নিয়েও সমালোচনা বাড়ছে৷ এদিকে আরও এক বিদেশির উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে৷

জার্মানির কেমনিৎস শহরে গত সপ্তাহান্তে চরম দক্ষিণপন্থিদের তাণ্ডব ও বিদেশি বিদ্বেষের খোলামেলা বহিঃপ্রকাশের পর উত্তর-পূর্বে ভিসমার শহরে এক বিদেশির উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে৷ পুলিশ সূত্র অনুযায়ী, ২০ বছরের সেই তরুণ বাড়ি ফেরার সময় তিনজন জার্মানভাষী ব্যক্তি প্রথমে বিদেশি হিসেবে তার উদ্দেশ্যে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করে, তারপর তাকে প্রহার করে৷ আক্রান্ত ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে৷

জার্মানিতে বিদেশি বিদ্বেষের সাম্প্রতিক ঘটনা আন্তর্জাতিক স্তরেও তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে৷ জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান জেইদ রা'আদ আল হুসেন জেনিভায় সাংবাদিকদের বলেন, চরম দক্ষিণপন্থি বিক্ষোভকারীরা জার্মানির রাজপথে নাৎসি অভিবাদন করছে, এমন দৃশ্য অত্যন্ত জঘন্য৷ তিনি ইউরোপের অতীত যুদ্ধগুলির স্মৃতি মুছে যাবার বিষয়ে সতর্ক করে দেন৷ ইউরোপের বিভিন্ন প্রান্তে চরম দক্ষিণপন্থি শক্তির উত্থানের প্রেক্ষাপটে তিনি এমন মন্তব্য করেন৷ শুধু জাতিসংঘ নয়, ইউরোপের সব সরকারি ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি৷

জার্মানিতেও বিদেশি বিদ্বেষ ও তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়ে জোরালো তর্কবিতর্ক চলছে৷ কিন্তু চরম দক্ষিণপন্থি শক্তি সে সব অগ্রাহ্য করে তাদের শক্তি প্রদর্শনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে৷

চরম দক্ষিণপন্থি এএফডি দল ও ইসলাম-বিরোধী পেগিডা আন্দোলন আগামী শনিবার কেমনিৎস শহরেই এক যৌথ জনসভার ঘোষণা করেছে৷ তারা জানিয়েছে, সেই শহরে গত সপ্তাহান্তে নিহত ব্যক্তি এবং যারা ‘চাপানো বহু সংস্কৃতির সহাবস্থানের শিকার' হয়েছে, তাদের জন্য শোকসভা অনুষ্ঠিত হবে৷ এএফডি দলের এক নেতা জানিয়েছেন, তাঁর দল মোটেই উসকানি দিতে এমন জনসভা করছে না৷ গোটা দেশে অনেক মানুষের মেজাজ অত্যন্ত বিষণ্ণ, যার পেছনে যথেষ্ট কারণ রয়েছে বলে মনে করেন তিনি৷

জার্মানির পূর্বাঞ্চলে চরম দক্ষিণপন্থি গোষ্ঠীগুলির প্রভাব-প্রতিপত্তি এবং এ ক্ষেত্রে আঞ্চলিক পুলিশের ভূমিকা নিয়ে জোরালো সমালোচনা শোনা যাচ্ছে৷ চরম দক্ষিণপন্থি গোষ্ঠীগুলি কেমনিৎস শহরে হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশের সমন ফাঁস করে ইন্টারনেটে প্রকাশ করার পর স্যাক্সনি রাজ্যের উপ মুখ্যমন্ত্রী পুলিশের একাংশের সমালোচনা করেন৷ জেনেশুনে এমন অপরাধ মোটেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি৷ উল্লেখ্য, পুলিশ বাহিনীর মধ্যে নব্য নাৎসি ও পেগিডার প্রতি সহানুভূতির অভিযোগ এর আগেও উঠেছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন