জার্মানিতে ইরাকি শরণার্থী | বিশ্ব | DW | 20.03.2009
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

জার্মানিতে ইরাকি শরণার্থী

বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই জার্মানির বিভিন্ন অঞ্চলে বসবাস করছেন ইরাকি শরণার্থীরা৷ এঁরাই হলেন এ দেশে বসবাসরত সবচেয়ে বড় শরণার্থী গোষ্ঠী৷ চলতি বছর জার্মানি আরো আড়াই হাজার ইরাকি শরণার্থী গ্রহণ করবে৷

default

বৃহস্পতিবার এদের প্রথম দলটি জার্মানিতে এসে পৌঁছেছে৷

গত বেশ কয়েক বছর ধরে জার্মানিতে বসবাস করলেও ইরাকি শরণার্থীদের অনেকেরই এ দেশে থাকার স্থায়ী অনুমতি পত্র নেই৷ এঁদেরই একজন হলেন আল-জুহাইরি৷ তিনি বলেন, সত্যি বলতে কি, আমার কোন পরিবার নেই৷ ইরাকে,বাগদাদে আমার কেউ নেই৷ বর্তমানে আমি ইরাকে ফিরে যেতে পারবো না৷ কারণ দেশটিতে এখনো রক্তপাত ঘটছে৷

Deutschland Irak Flüchtlinge Ankunft in Hannover

চলতি বছর জার্মানি আরো আড়াই হাজার ইরাকি শরণার্থী গ্রহণ করবে৷

আল-জুহাইরি এর ইরাকে প্রত্যাবর্তনের কথা ভাবা যায় না৷ আনুমানিক যে বায়াত্তর হাজার ইরাকি শরণার্থী বর্তমানে জার্মানিতে বসবাস করছেন তাঁদেরই একজন হলেন এই জুহাইরি৷ ৩২ বছর বয়সী এই ইরাকি দুই হাজার এক সালে তাঁর দেশ থেকে পালিয়ে জার্মানিতে চলে আসেন এবং আবেদন করেন শরণার্থী হিসেবে এ দেশে আশ্রয় লাভের জন্য৷ কিন্তু তাঁর আবেদন নাকচ হয়ে যায়৷ এর পর থেকে আল-জুহাইরি এদেশে বসবাস করছেন থাকার অনুমতি পত্র ছাড়াই৷ বৈধ না হলেও তাঁদেরকে জার্মানিতে থাকতে দেয়া হচ্ছে ৷

ইরাকি শরণার্থীদের বর্তমানে তাঁদের দেশে ফেরত পাঠানো যেতে পারে না ৷ কারণ দেশটিতে এখনো গৃহ-যুদ্ধ লেগেই রয়েছে৷ লোয়ার স্যাক্সনী অঙ্গ রাজ্যের শরণার্থী পরিষদের কায় বেবার এর মতে, নিকট ভবিষ্যতেও এই পরিস্থিতির পরিবর্তন হবে না৷ তিনি বলেন, এই পরিস্থিতিতে আমরা যথার্থ বলে মনে করছি, যেসব ইরাকি বর্তমানে জার্মানিতে বর্তমানে বৈধ কাগজপত্র ছাড়া বসবাস করছেন তাঁদেরকে থাকার অনুমতি পত্র দেয়ার৷ অদূর ভবিষ্যতে আইনগত ও বর্তমান পরিস্থিতির কারণে এঁদের ইরাকে প্রত্যাবর্তন সম্ভব নয়৷

তবে লোয়ার স্যাক্সনী রাজ্যের শরণার্থী পরিষদ নীতিগতভাবে স্বাগত জানিয়েছে চলতি বছর আড়াই হাজার ইরাকি শরণার্থীকে আশ্রয় দেয়ার জার্মান সরকারের সিদ্ধান্তের জন্য৷ অবশ্য পরিষদ মনে করে, এই সংখ্যা যথেষ্ট নয়৷ কারণ সিরিয়া ও জর্ডানের শরণার্থী শিবিরে এখনো বসবাস করছেন পঁচিশ লাখ ইরাকি শরণার্থী৷

লেখক: আবদুস সাত্তার, সম্পাদক: আব্দুল্লাহ আল-ফারুক

বিজ্ঞাপন