জামিনে মুক্তি পেলেন পুজদেমন | বিশ্ব | DW | 06.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

স্পেন-জার্মানি

জামিনে মুক্তি পেলেন পুজদেমন

কাটালুনিয়ার নেতা কার্লেস পুজদেমনের জামিন একটি কারণে ঝুলে ছিল৷ অবশেষে ৭৫ হাজার ইউরো জমা দেওয়ায় মুক্তি পেলেন তিনি৷ বিদ্রোহের অভিযোগ নস্যাৎ করে জার্মানির এক আঞ্চলিক আদালত প্রত্যর্পণ সংক্রান্ত মামলায় তাঁর জামিন মঞ্জুর করে৷

প্রত্যাশা অনুযায়ী শুক্রবারই পুলিশের হেফাজত থেকে বেরিয়ে এসেছেন পুজদেমন৷ গত ২৫শে মার্চ থেকে জার্মানির উত্তরে শ্লেসভিক হলস্টাইন রাজ্যের নয়ম্যুনস্টার শহরে আটক ছিলেন তিনি৷ দায়িত্বপ্রাপ্ত আঞ্চলিক আদালত চারটি শর্তে পুজদেমনকে জামিন দেয়৷ এর আওতায় তাঁকে ৭৫,০০০ ইউরো জমা দিতে বলা হয়েছিল৷ এই অর্থ জমা দেওয়ায় তিনি মুক্তি পেয়েছেন৷ তবে জার্মানি ছেড়ে যেতে পারবেন না পুজদেমন৷ বাসস্থান বদলালে আদালতকে জানাতে হবে৷ সপ্তাহে একবার সশরীরে নয়ম্যুনস্টার শহরের পুলিশের কাছে হাজিরা দিতে হবে এবং আলাদা করে তলব করলেও তাঁকে উপস্থিত হতে হবে৷ পুজদেমনের আইনজীবীরা মনে করিয়ে দেন, তিনি শুরু থেকেই জার্মানির বিচার ব্যবস্থার প্রতি আস্থা দেখিয়ে এসেছেন৷ জামিনে মুক্তির খবরের পরই তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি বার্তা প্রকাশ করা হয়৷ তাতে লেখা ছিল, ‘‘আগামীকাল দেখা হবে৷ সবাইকে অনেক ধন্যবাদ৷''

স্পেনের সরকার পুজদেমনের বিরুদ্ধে যে দু'টি অভিযোগের ভিত্তিতে ইউরোপীয় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিল, জার্মানির আদালত তার একটি মেনে নিয়েছে৷ দুর্নীতির অভিযোগকে আমল দিলেও বিদ্রোহের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রত্যর্পণের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছে আদালত৷ উল্লেখ্য, স্পেনের সরকারের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও পুজদেমন স্বাধীনতার প্রশ্নে গণভোটের আয়োজন করেছিলেন৷ এর জন্য প্রায় ১৬ লক্ষ ইউরো ব্যয় করা হয়েছিল৷ তাই তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি অর্থ তছরূপের অভিযোগ আনা হয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

স্পেনের সরকার জার্মানির আদালতের এই রায়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে৷ তবে বিচারমন্ত্রী রাফায়েল কাটালা এই রায় মেনে নিয়েছেন৷ তিনি বলেছিলেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চতর আদালতে আপীল করা হবে কিনা, জার্মানির সরকারি কৌঁসুলি সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন৷ তবে জার্মানির আদালত স্পেনের সরকারের কাছে দুর্নীতির অভিযোগের সপক্ষে আরও তথ্যপ্রমাণ ও ব্যাখ্যা চেয়েছে৷

জামিনে পুজদেমনের মুক্তির সম্ভাবনার খবর পেয়ে কাটালুনিয়া রাজ্যে অনেক মানুষ স্বস্তি প্রকাশ করেছেন৷ তবে বৃহস্পতিবার রাতে কোনো মিছিলের খবর পাওয়া যায়নি৷ জার্মানির আদালত বিদ্রোহের অভিযোগ নস্যাৎ করে দেওয়ায় অনেক আইনি বিশেষজ্ঞ স্বস্তি প্রকাশ করেছেন৷ তাঁদের মতে, শেষ পর্যন্ত পুজদেমনকে স্পেনে প্রত্যর্পণ করা হলেও বিদ্রোহের অভিযোগ ধোপে টিকবে না৷ সেক্ষেত্রে ৩০ বছরের কারদণ্ডের বদলে তহবিল তছরূপের দায়ে শাস্তির মাত্রা অনেক কম হবে৷

এদিকে বৃহস্পতিবার বেলজিয়ামের এক আদালত কাটালুনিয়ার তিনজন প্রাক্তন মন্ত্রীকে জামিনে মুক্তি দিয়েছে৷ তবে চতুর্থ জন এখনো পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন৷ তাঁদের বিরুদ্ধেও বিদ্রোহসহ একাধিক অভিযোগ এনেছে স্পেনের সরকার৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন