জাতিসংঘের বর্ণবৈষম্য সম্মেলন বর্জন করছে আমেরিকা | বিশ্ব | DW | 19.04.2009
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

জাতিসংঘের বর্ণবৈষম্য সম্মেলন বর্জন করছে আমেরিকা

জাতিসংঘের উদ্যোগে কোনো আন্তর্জাতিক সম্মেলনকে ঘিরে এমন বিতর্কের দৃষ্টান্ত বোধহয় নেই, যেমনটা দেখা যাচ্ছে বর্ণবৈষম্য বিরোধী সম্মেলনের ক্ষেত্রে – যা শুরু হচ্ছে সোমবার থেকে সুইজারল্যান্ডের জেনিভা শহরে – চলবে ৫ দিন ধরে৷

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কমিশনর নাভি পিল্লাই

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কমিশনর নাভি পিল্লাই

একের পর এক গুরুত্বপূর্ণ দেশ ঐ সম্মেলন থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিচ্ছে৷ এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও সেই সিদ্ধান্ত নিল৷ সেদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যে সম্মেলনের ঘোষণাপত্রের খসড়ায় এখনো এমন কিছু অংশ রয়েছে, যাতে একতরফাভাবে ইসরায়েলের সমালোচনা করা হয়েছে৷

ইতিমধ্যে যেসব দেশ অংশগ্রহণ করবে না বলে জানিয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া, ইসরায়েল ও কানাডা৷ জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, যে জার্মানির অংশগ্রহণ সম্পর্কে এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় নি৷ নেদারল্যান্ডসের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করে ইউরোপের বেশ কিছু দেশ ঐ সম্মেলন বর্জন করতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে৷

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কমিশনর নাভি পিল্লাই জানিয়েছেন, মার্কিন প্রশাসনের সিদ্ধান্তে তিনি অত্যন্ত মর্মাহত৷ আমেরিকা সহ পশ্চিমা দেশগুলি যে সব কারণ উল্লেখ করে সম্মেলনে অংশ নিতে অস্বীকার করছে, তার বেশীরভাগই দূর করা সম্ভব ছিল বলে তিনি মনে করেন৷ একটি বা দুটি বিষয়কে এতটা প্রাধান্য দিয়ে কয়েকটি দেশের এমন মনোভাবের ফলে বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তে বৈষম্যের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি অবহেলিত হবে বলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন৷ যেহেতু বিষয়গুলির আন্তর্জাতিক মাত্রা রয়েছে, সেকারণেই এমন এক সম্মেলনই আলোচনার সঠিক মঞ্চ বলে তিনি মনে করেন৷

উল্লেখ্য, শেষরক্ষা করতে শুক্রবার কূটনীতিকরা সম্মেলনের ঘোষণাপত্রের একটি খসড়া তৈরী করেছিলেন, যাতে ধর্মীয় বৈষম্য, ইসরায়েল ও মধ্যপ্রাচ্যের মত বিতর্কিত বিষয়গুলি যতটা সম্ভব বাইরে রাখা হয়েছিল৷ তবে ইরানের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আহমেদিনিজাদ ঐ সম্মেলনে যোগ দিতে আসায় ইসরায়েলের প্রবল সমালোচনা শোনা যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ রবিবার তিনি জেনিভার উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার আগেও কড়া ভাষায় ইসরায়েলের নীতির সমালোচনা করেন৷

বিশ্বব্যাপী বর্ণবিষম্য, বিদেশী বিদ্বেষ সহ অসহিষ্ণুতার অন্যান্য রূপের মোকাবিলা করতে এই সম্মেলন আয়োজনের উদ্যোগ শুরু হয়েছিল ৮ বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে৷ কিন্তু সেখানে বর্ণবৈষম্যের সঙ্গে ইসরায়েলের জায়নিজম নীতিকে সমান স্তরে রাখায় আমেরিকা ও ইসরায়েল সম্মেলন ছেড়ে চলে যায়৷

ইন্টারনেট লিংক

বিজ্ঞাপন