জাকির নায়েকের দুঃখ প্রকাশ | বিশ্ব | DW | 20.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মালয়েশিয়া

জাকির নায়েকের দুঃখ প্রকাশ

মালয়েশিয়ায় জাতিবিদ্বেষমূলক মন্তব্যের কারণে জনসমক্ষে ভাষণ নিষিদ্ধ হবার পর ক্ষমা চেয়েছেন জাকির নায়েক৷ ভারতের এই বিতর্কিত ইসলামি চিন্তাবিদ বলেছেন, কাউকে কষ্ট দেয়ার জন্য তিনি কিছু বলেননি৷

ভারতে অর্থ পাচার এবং ঘৃণা ছড়ানোর অভিযোগ মাথায় নিয়ে তিন বছর ধরে মালয়েশিয়ায় রয়েছেন জাকির নায়েক৷ সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পাওয়া এই ইসলাম প্রচারক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কথা বলেন৷ কয়েকদিন আগে এক অনুষ্ঠানে তিনি ভারতের মুসলমানদের চেয়ে মালয়েশিয়ার হিন্দুরা ‘১০০ গুণ বেশি অধিকার ভোগ করেন' বলে মন্তব্য করেন৷ মালয়েশীয় চীনাদের সম্পর্কে তার মন্তব্য ছিল, ‘‘ওরা এ দেশের (মালয়েশিয়া) অতিধি৷ তার এসব মন্তব্যের তুমুল সমালোচনা হয়৷ একশ' জানেরও বেশি মানুষ বর্ণবাদী মন্তব্য করে শান্তি বিঘ্নিত করার অভিযোগ তোলেন৷ মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, জাকির নায়েক সীমা লঙ্ঘন করেছেন, তিনি ইসলাম সম্পর্কে কথা বলতে পারেন, তবে মালয়েশিয়ার সব বিষয়ে কথা বলা তার উচিত নয়৷ বেশ কয়েকজন মন্ত্রী ক্ষুব্ধ হয়ে মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের প্রকাশ্যে বক্তব্য রাখা নিষিদ্ধ করার দাবি জানান৷ মঙ্গলবার বক্তব্যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জাকির নায়েককে ১০ ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ৷ জিজ্ঞাসাবাদের সময় অবশ্য কাউকে আঘাত দেয়ার উদ্দেশ্যে কিছু বলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি৷ জাকির নায়েক বলেন, ‘‘আমি কখনোই কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে আঘাত দেয়ার উদ্দেশ্যে কোনো কথা বলিনি৷'' তার দাবি, শুধু ইসলামের মর্মবাণীই প্রচার করেন তিনি৷

এসিবি/ কেএম (এএফপি, রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন