জল ঘোলা করে খেল ক্রোয়েশিয়া | খেলাধুলা | DW | 01.07.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফুটবল

জল ঘোলা করে খেল ক্রোয়েশিয়া

দর্শকদের তীব্র মানসিক চাপে রেখে শেষ পর্যন্ত পেনাল্টি শুটআউটে জয়ের মুখ দেখল ক্রোয়েশিয়া৷ ডেনমার্ককে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারালো তারা৷ কোয়ার্টার ফাইনালে তারা মুখোমুখি হবে স্বাগতিক রাশিয়া৷ 

রোববার যেন ঈশ্বর পরীক্ষা নিয়েছেন ফুটবলপ্রেমীদের৷ কি খেলোয়াড়, কি সমর্থক, শেষ সেকেন্ড পর্যন্ত উত্তেজনা! স্পেন-রাশিয়া ম্যাচের পর ক্রোয়েশিয়া-ডেনমার্কের প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচও গড়ায় টাইব্রেকারে৷ 
পুরো ম্যাচে ছিল নাটকীয়তা৷ টাইব্রেকার আর বাদ যাবে কেন? নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলের ড্র ম্যাচকে টেনে নিয়ে যায় টাইব্রেকারে৷ 
ডেনমার্কের পক্ষে প্রথম শটটি নিতে আসেন তাদের সেরা তারকা এরিকসেন৷ কিন্তু প্রথম শটেই তিনি দলের কফিনে প্রথম পেরেকটি ঠুকে দেন৷ 
ক্রোয়েশিয়ার পক্ষে আসেন বাদেলস৷ সোজা মারেন শেমাইখেল বরাবর৷ পা দিয়ে ঠেকিয়ে দেন লেস্টার সিটি গোলরক্ষক৷ দুই দলেরই পরের দু’টি করে শট সফলতার মুখ দেখে৷ তার একটি ছিল মডরিচের৷ কিছুক্ষণ আগেই ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে ভুল করলেও এবার আর করেননি তিনি৷ তবে হোঁচট খান ডেনমার্কের শোনে৷ তার শটটি ফিরিয়ে দেন দুর্দান্ত সুবাসিচ৷ একইভাবে শেমাইখেলও ফেরান পিভারিচকে৷ এ যেন শেয়ানে শেয়ানে লড়াই৷ 
দলের পক্ষে পঞ্চম শটটি নিতে আসেন প্রথম মিনিটে গোল করা সেই ইয়োর্গেনসন৷ কিন্তু এবারো সুবাসিচ প্রমাণ করেন কেন তিনি সেরা৷ বাকি ছিল রাকিতিচের শট৷ বার্সেলোনার এই অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার সহজেই পরাস্ত করেন শেমাইখেলকে৷ পরিষ্কার হয় ক্রোয়েশিয়ার শেষ আটে যাবার পথ৷

Fußball WM 2018 Kroatien vs Dänemark Sieg Jubel

জয় নিশ্চিত হবার পর

 
এর আগে ম্যাচের প্রথম পাঁচ মিনিটে দুই দলের ঝুড়িতে একটি করে গোল তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস দিচ্ছিল শুরু থেকেই৷ যদিও ফুটবল বোদ্ধাদের প্রত্যাশার পাল্লা ভারি ছিল মডরিচ-রাকিতিচদের ক্রোয়েশিয়ার পক্ষেই৷ অন্যদিকে, টটেনহাম প্লেমেকার এরিকসেনকে ঘিরে সাজানো কৌশলে ড্যানিশরা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যে থাকবে, তাতেও কোনো সন্দেহ ছিল না৷ 

Fußball WM 2018 Kroatien vs Dänemark Sieg Niederlage

হারলেও তীব্র লড়াই করেছে ডেনমার্ক


কিন্তু নিঝনি নভগোরদ স্টেডিয়ামে হিসেব যেন বদলে গেল প্রথম মিনিটেই৷ ক্রোয়াটদের ডিফেন্সে লম্বা এক থ্রো-ইন জটলা তৈরি করলে ইয়োর্গেনসনের দুর্বল শটেই এগিয়ে যায় ডেনমার্ক৷ চার মিনিটের মাথায় ক্রোয়েশিয়াও শোধ দেয় সেই গোল৷ সেটিও খুব একটা পরিকল্পিত সাফল্য ছিল না৷ 
এরপর প্রথমার্ধে নয়টি চমৎকার সুযোগ তৈরি করে ক্রোয়েশিয়া, যার তিনটি থেকে গোল হলেও হতে পারত৷ কিন্তু স্কোরবোর্ডে কোনো পরিবর্তন আনতে পারেনি তারা৷ অন্যদিকে, পাঁচটি সুযোগ তৈরি করে ডেনমার্ক৷ দু’টি সুযোগ ক্রোয়াট গোলরক্ষক সুবাসিচের খাঁচার দিকে পরিষ্কার পথও তৈরি করে৷ কিন্তু সাফল্য তারাও পায়নি৷ 
এবারের বিশ্বকাপ মিশনে ক্রোয়েশিয়ার আগে করা আট গোলের ছয়টিই এসেছে দ্বিতীয়ার্ধে৷ তাই ক্রোয়াট সমর্থক শিবিরেও প্রত্যাশার পারদ তুঙ্গেই ছিল৷ কিন্তু পেরিসিচ, রাকিতিচ, মডরিচরা এবার ব্যর্থ হলেন৷ বরং প্রায়ই বিপজ্জনক হয়ে উঠছিলেন ড্যানিশরা৷ শেষ পর্যন্ত ১-১ সমতাতেই শেষ হয় নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা৷ 


অতিরিক্ত সময়ের শুরুতে আক্রমণের ধার বাড়ায় ডেনমার্ক৷ বেশ কিছুক্ষণ ক্রোয়েশিয়ার ডি-বক্সের আশেপাশেই বল ঘুরছিল৷ কিন্তু বিপদের কারণ হতে পারেনি৷ পাল্টা আক্রমণে গিয়েছেন ক্রোয়াটরাও৷ কিন্তু ড্যানিশ গোলরক্ষক শেমাইখেলের দৃঢ়তায় কাজের কাজ হয়নি৷ 
কিছুটা ঝিমিয়ে পড়া খেলা হঠাৎ করেই উত্তেজনা ছড়ায় ১১৪ মিনিটে৷ মডরিচ তাঁর শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ আবারো দেন দুর্দান্ত এক পাস দিয়ে৷ ক্রামারিচ সেই বলটি নিয়ে এগিয়ে যান৷ সামনে কেবল শেমাইখেল৷ কিন্তু পেছন থেকে ইয়োর্গেনসন ফাউল করলে ডি-বক্সের ভেতর পড়ে যান ক্রামারিচ৷ পেনাল্টি৷ ভাগ্য ভালো ইয়োর্গেনসেনের যে শুধু হলুদ কার্ডই দেখেছেন৷ 
কিন্তু শ্রেষ্ঠদেরও ভুল হয়৷ রোনাল্ডো মিস করেছেন৷ মেসি মিস করেছেন৷ মডরিচ কেন নয়? 
রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার নিজেই স্পটকিক নিতে যান৷ কিন্তু তাঁর শট অতিক্রম করতে পারেনি শেমাইখেলকে৷ ঝাঁপিয়ে পড়ে বল জাপটে ধরেন ড্যানিশ গোলরক্ষক৷ শেষ পর্যন্ত খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে৷ 
আর সেখান থেকেই শেষ হাসি হাসেন ক্রোয়াটরা৷ 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন