জলপথ চালু রাখতে অভিনব প্রযুক্তি | বিশ্ব | DW | 26.12.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

জলপথ চালু রাখতে অভিনব প্রযুক্তি

জলপথে বিপজ্জনক পরিস্থিতি ও দুর্ঘটনা এড়াতে জার্মানিতে এক অভিনব সিমুলেটর ব্যবহার করা হচ্ছে৷ এর সাহায্যে সম্ভাব্য বিপদগুলি সম্পর্কে আগেভাগে আভাস পেয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব৷

জার্মানির ফেডারেল জলপথ ইঞ্জিনিয়ারিং ও গবেষণা ইনস্টিটিউট বা বিএডাব্লিউ এই মুহূর্তে মাইন নদীর উপর লোয়র এলাকার সেতুটি পরীক্ষা করছে৷ চারিপাশের নিসর্গ অতি সুন্দর দেখতে হলেও মাইন নদীর উপর নীচু সেতুগুলি উত্তর সাগর ও কৃষ্ণ সাগরের মধ্যে যোগাযোগের পথে সমস্যা সৃষ্টি করছে৷

এবার পুরানো এই সেতুগুলির মেরামতির সময় এসে গেছে৷ কাজ সারতে বেশ কয়েক মাস সময় লাগবে৷ রাইন-মাইন-দানিয়ুব খাল এতদিন বন্ধ রাখলে অনেককেই বড় অর্থনৈতিক লোকসানের মুখ দেখতে হবে৷ তাই প্রশ্ন হলো, নির্মাণকাজের সময় নদীর মধ্যভাগ বন্ধ রাখলে পাশের অংশ দিয়ে কি পরিবহণ চালু রাখা সম্ভব?

যে সব  জাহাজ নদীর উজানের দিকে চলে, সেগুলিকে বর্তমানেও পাশের এই পথ ধরে চলতে হয়৷ একাধিক জাহাজ পরস্পরের সঙ্গে লাগিয়ে যে বহর সৃষ্টি করা হয়, তার জন্য এমন সরু পথ বড়ই কঠিন৷ জাহাজের ক্যাপ্টেন হিসেবে ভ্যার্নার মেংকে মনে করেন, ‘‘নদীর পাড় ও সেতুর থাম এড়িয়ে চলার বিশাল ঝুঁকি রয়েছে৷ তাই মাঝামাঝি পথে চলতে হয়৷ অর্থাৎ সেটা করা সম্ভব৷ তবে অসম্ভব না হলেও নদীর মধ্যভাগ দিয়ে গেলে অনেক সহজে জাহাজ চালানো সম্ভব৷''সেতুর থামের সঙ্গে দূরত্ব সত্যি বড় কম৷ প্রাচীরের গায়ে দাগ দেখলেই বোঝা যায়, যে সবাই এই পথে ঠিকমতো জাহাজ চালাতে পারে না৷ কোনো সমস্যা হয় নি৷ উজানের পথে তেমন সমস্যা হয় না৷ কিন্তু উলটো পথে স্রোত সামলে এই সরু অংশ দিয়ে জাহাজ চালানো অনেক বেশি কঠিন৷

তাই এবার সিমুলেটর কাজে লাগানো হচ্ছে৷ অভিজ্ঞ এক ক্যাপ্টেন নিজের হাতে সেই পরীক্ষা করছেন৷ নকল যাত্রা সত্ত্বেও উত্তেজনা কিন্তু কম নেই৷ ধাক্কা না মেরেই তিনি কাজটা করতে পেরেছেন৷ কিন্তু এবার পরিস্থিতি আরও কঠিন করতে পানির উচ্চতা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে৷ এমন অবস্থায় এখনো পর্যন্ত সব ক্যাপ্টেনেরই বড় সমস্যা হয়েছে৷ হ্যোর্নিশ-ও সেটা টের পাচ্ছেন৷ পানির এমন উচ্চতায় কোনোরকমে জাহাজ গলানো সম্ভব৷ ফলে স্পষ্ট হয়ে গেল যে, এই অংশে জাহাজ চলাচল উচ্চতার উপর নির্ভর করবে৷

চড়ায় জাহাজ আটকে যাওয়া বা অন্য জাহাজের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা সিমুলেটরেই সীমাবদ্ধ থাকলে ভালো, বাস্তবে যেন সেই সব অঘটন না ঘটে৷ আধুনিক প্রযুক্তি সেটাই সম্ভব করে তুলতে চায়৷

ইয়র্গ ভল্ফ/এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন