জর্ডানে রাজার আনুগত্য মানলেন যুবরাজ | বিশ্ব | DW | 06.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জর্ডান

জর্ডানে রাজার আনুগত্য মানলেন যুবরাজ

জর্ডানের প্রিন্স হামজা জানিয়ে দিলেন, তিনি রাজা আবদুল্লাহের সম্পূর্ণ অনুগত থাকবেন। মানবেন রাজকীয় ব্যবস্থাকেও।

প্রিন্স হামজা বলেছেন, তিনি কোনো ষড়যন্ত্র করেননি।

প্রিন্স হামজা বলেছেন, তিনি কোনো ষড়যন্ত্র করেননি।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি রাজার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছেন। কিন্তু প্রিন্স হামজা একটি সই করা চিঠিতে জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি রাজা এবং রাজকীয় ব্যবস্থাকে মেনে চলবেন।

প্রিন্স হামজা লিখেছেন, ''আমি নিজেকে রাজার হাতে সমর্পণ করলাম। আমি আমার প্রিয় জর্ডানের সংবিধানের প্রতি বিশ্বস্ত থাকব। আমি রাজা ও ক্রাউন প্রিন্সকে সমর্থন করে যাব। আমার দেশের স্বার্থ আমার কাছে সর্বোচ্চ। আমাদের সকলের উচিত রাজার পাশে দাঁড়ানো। এবং জর্ডানকে রক্ষা করা এবং তার স্বার্থ দেখা।''  প্রিন্স হামজার আইনজীবী জানিয়েছেন, দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা সফল হয়েছে। 

মধ্যস্থতার চেষ্টা

হামজা হলেন সাবেক ক্রাউন প্রিন্স। তিনি সোমবার রাজার কাকা প্রিন্স হাসান এবং অন্য রাজপুত্রদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

জর্ডানের রয়্যাল প্যালেস সোমবার জানিয়েছিল, রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহ পরিবারের এক সদস্যকে বলবেন তার সৎ ভাই হামজার সঙ্গে আলোচনা করতে। তিনি এই দায়িত্ব তার কাকার উপর দেন। হামজার আইনজীবীও জানিয়েছেন, মধ্যস্থতা সফল হয়েছে।

Jordanien König Abdullah Prinz Hamzah al-Hussein 2012

জর্ডানের রাজপরিবারের সঙ্গে প্রিন্স হামজা।

হামজাকে কিছুদিন আগে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছিল। তিনি তখন বলেছিলেন, তার গতিবিধির উপর কোনো বিধিনিষেধ তিনি মানবেন না। ৪১ বছর বয়সী প্রিন্স বলেছিলেন, জর্ডানের নিরাপত্তা বাহিনী তাকে হুমকি দিচ্ছে।  

সরকারের অভিযোগ ছিল, হামজা চক্রান্ত করছেন। তাই প্রচুর কর্মকর্তার সঙ্গে তাকে নিজের প্যালেসে গৃহবন্দি করে রাখা হয়। হামজা বলেছিলেন, তিনি কোনো চক্রান্ত করছেন না। কিন্তু তিনি এই ধরনের নির্দেশ মানবেন না। জর্ডানের বিদেশমন্ত্রীর অভিযোগ ছিল, হামজা এই সব রেকর্ড করা কথা ফাঁস করেছেন। কারণ, তিনি বিদেশ থেকে সাহায্য চান।

অ্যামেরিকা ও আরব দেশগুলি অবশ্য আবদুল্লাহকে সমর্থন করেছিল। 

জিএইচ/এসজি(এএফপি, এপি)