ছবিতে অবাধ যৌনতা নিয়ে জার্মানিতে বিতর্ক | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 27.08.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ছবিতে অবাধ যৌনতা নিয়ে জার্মানিতে বিতর্ক

বাথটাবে নগ্নদেহে শুয়ে আছে এক তরুণী৷ কামনার তীব্র বাসনা তাঁর দেহে৷ হাতে নিলেন একটি শসা৷ জার্মানিতে গত সপ্তাহে মুক্তিপ্রাপ্ত এক ছবিতে এরকমই বিভিন্ন দৃশ্য রয়েছে৷ ছবিটি দেখতে প্রেক্ষাগৃহে ভিড় করছেন অসংখ্য দর্শক৷

টেলিভিশন উপস্থাপক শার্লটে রুশ-এর একটি উপন্যাসের ভিত্তিতে তৈরি হয়েছে এই ছবি৷ পাঁচ বছর আগে তিনি লিখেছিলেন ‘ওয়েটল্যান্ডস' নামক যৌনকামনা উদ্রেককারী উপন্যাসটি৷ সে বছর জার্মানিতে এই বইয়ের দুই মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি হয়৷ শুধু জার্মান নয়, আটাশটি ভাষায় এটি অনুবাদও করা হয়েছে ইতোমধ্যে৷

Filmstill Feuchtgebiete

মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন কার্লা ইয়ুরি

রুশ-এর এই বিতর্কিত বইয়ের কাহিনি অবলম্বনে এবার তৈরি হয়েছে চলচ্চিত্র৷ গত সপ্তাহে জার্মানিতে মুক্তি পাওয়ার পরপরই ‘সিনেম্যাক্স চার্ট' এর তিন নম্বরে উঠে গেছে সেটি৷ পশ্চিমা চলচ্চিত্রে নগ্নতা তেমন কোন ব্যাপার না হলেও ‘ওয়েটল্যান্ডসে' নারীর যৌনজীবন সম্পূর্ণ ভিন্নভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে৷ প্রকাশ করা হয়েছে এক ভিন্ন স্বাধীনতার গল্প৷ যদিও বাড়াবাড়ি রকমের এই যৌনতাতে বিরক্ত কেউ কেউ৷ তারা গোটা উপন্যাসটি নিষিদ্ধ করারও পক্ষে৷

যৌনতার ছড়াছড়ি নিয়ে বিতর্ক থাকলেও এই ছবির মাধ্যমে এক তরুণীর একাকিত্বের গল্পও তুলে ধরেছেন রুশ৷ ছবির নায়িকা চাচ্ছিলেন তাঁর বাবা-মাকে আবারো এক করতে৷ ছোটবেলায় তাদের আলাদা হতে দেখেছেন তিনি৷ তাদের পুর্নমিলন দেখতে তাই হাসপাতালের বিছানায় দিনের পর দিন কাটিয়েছেন তরুণী৷ কিন্তু আশা পূরণ হয়নি৷

***Das Pressebild darf nur in Zusammenhang mit einer Berichterstattung über den Film verwendet werden*** Robin (Christoph Letkowski) und Helen (Carla Juri): Nach Regen folgt Sonnenschein. (Copyright: Peter Hartwig / Majestic)

ছবির একটি দৃশ্য

ওয়েটল্যান্ডস' পরিচালনা করেছেন ডাভিড ভ্নেট, আর মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন কার্লা ইয়ুরি৷ সপ্তাহান্তে অন্তত দু'লাখ দর্শক প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি দেখেছেন বলে জানিয়েছে মিডিয়া গবেষণা সংস্থা জিএফকে৷

রুশ-এর কাহিনি নিয়ে নির্মিত এই ছবির আরো একটি দিক আছে৷ লেখিকার ভাষ্য অনুযায়ী, বইটির অন্তত সত্তর শতাংশ গল্প আত্মজীবনীমূলক৷ তার মানে রুপালি পর্দায় দর্শক যা দেখছেন, তা কিছুটা অতিরঞ্জিত হলেও পুরোপুরি কাল্পনিক নয়৷

উল্লেখ্য, ইংল্যান্ডে জন্ম নেওয়া শার্লটে রুশ গত বেশ কয়েক বছর ধরে জার্মানিতে বসবাস করছেন৷ ইংরেজি এবং জার্মান – দু'টো ভাষাই সমান জানেন তিনি৷ লেখালেখি ছাড়াও সংগীত এবং অভিনয়েও পারদর্শী রুশ৷

এআই / এসবি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন