‘চুক্তি থেকে একচুল নড়বো না’ | বিশ্ব | DW | 30.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইরান

‘চুক্তি থেকে একচুল নড়বো না’

ইরানের প্রেসিডেন্ট পরমাণু চুক্তির শর্ত নিয়ে নতুন করে দরকষাকষি করতে নারাজ৷ অন্যদিকে ট্রাম্প প্রশাসন সম্ভবত ১২ই মে এই চুক্তি থেকে সরে আসতে চলেছে৷ পরিস্থিতি সামলাতে কূটনৈতিক তৎপরতা তুঙ্গে৷

ইরানের প্রেসি়ডেন্ট হাসান রোহানি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর দেশ পরমাণু চুক্তিতে কোনো পরিবর্তন মেনে নেবে না৷ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর সঙ্গে টেলিফোনে প্রায় এক ঘণ্টার আলোচনার সময় তিনি আরও বলেন, ইরান এই চুক্তির আওতায় যাবতীয় দায়দায়িত্ব পালন করছে৷ অন্য কোনো অজুহাতে এর বাইরের বিষয় নিয়ে দরকষাকষির অবকাশ নেই৷ তবে মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের ভূমিকা নিয়ে সংলাপে কোনো আপত্তি নেই, বলেন রোহানি৷ আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে, বিশেষ করে সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলা করতে আলোচনা করতে তাঁর দেশ প্রস্তুত, বলেন রোহানি৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরান চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসার যে হুমকি দিয়ে চলেছেন, তার জের ধরে ইউরোপে জোরালো কূটনৈতিক তৎপরতা শুরু হয়ে গেছে৷ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁ এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন৷ তিনি ওয়াশিংটনে গিয়ে ট্রাম্পকে এই চুক্তির গুরুত্ব বোঝানোর চেষ্টা করেছেন৷ ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি ও আঞ্চলিক প্রভাবের বিষয় অন্তর্গত করে বর্তমান চুক্তির আরও সম্প্রসারণের পালটা প্রস্তাবও দিয়েছেন তিনি৷ কিন্তু ট্রাম্প এই মর্মে কোনো আশ্বাস দেননি৷ আগামী ১২ই মে তাঁকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে৷ জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলও ওয়াশিংটনে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে চুক্তি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন৷

সপ্তাহান্তে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে মাক্রোঁ ও ম্যার্কেলের সঙ্গে টেলিফোনে ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করেছেন৷ তাঁরা বর্তমান চুক্তির গুরুত্ব সম্পর্কে ঐকমত্য প্রকাশ করেছেন৷ চুক্তির বাকি দুই স্বাক্ষরকারী দেশ রাশিয়া ও চীনও এই চুক্তি মেনে চলার পক্ষে৷ অন্যদিকে ইসরায়েল ও সৌদি আরব ইরানের প্রভাব খর্ব করতে এই প্রশ্নে ওয়াশিংটনের সঙ্গ দিচ্ছে৷

সদ্য নিযুক্ত মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এই পরিস্থিতিতে রবিবার ইসরায়েল সফর করেছেন৷ তিনিও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, পরিবর্তন না হলে ট্রাম্প পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসবেন৷ ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু এই অবস্থানের পক্ষে সম্পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন৷ পম্পেও এর আগে সৌদি বাদশাহ সালমানের সঙ্গেও এ বিষয়ে আলোচনা করেন৷ তাঁর মতে, মধ্যপ্রাচ্যসহ বাকি বিশ্বে ইরানের কার্যকলাপ স্থিতিশীলতা বিপন্ন করছে৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন