চুক্তিহীন ব্রেক্সিট এড়াতে তৎপর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী, সংসদ | বিশ্ব | DW | 04.04.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ব্রিটেন

চুক্তিহীন ব্রেক্সিট এড়াতে তৎপর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী, সংসদ

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ও ব্রিটেনের সংসদ ব্রেক্সিটের ক্ষেত্রে বিলম্ব চাইলেও ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন না করলে এই প্রস্তাবে সম্মতি দিতে প্রস্তুত নয় ইইউ৷ টেরেসা মে বিরোধী লেবার দলের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন৷

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে ব্রেক্সিটের জট খুলতে বিরোধী লেবার দলের সঙ্গে বোঝাপড়ার চেষ্টা শুরু করেছেন৷ বুধবার তিনি লেবার নেতা জেরেমি কর্বিন-এর সঙ্গে এ বিষয়ে প্রাথমিক আলোচনা চালিয়েছেন৷ তাঁর সহায়তা নিয়ে ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন করাতে বদ্ধপরিকর প্রধানমন্ত্রী৷ তার বদলে এমনকি স্থায়ীভাবে ইইউ-র সঙ্গে শুল্ক ইউনিয়নে থেকে যাবার বিকল্প মেনে নিতে আপাতদৃষ্টিতে প্রস্তুত মে৷

বুধবারের আলোচনার পর কর্বিন বলেন, মে এখনো পুরোপুরি লেবার পার্টির প্রস্তাব মেনে নেননি৷ তিনি মনে করিয়ে দেন, তাঁর দল ইইউ-র সঙ্গে শুল্ক ইউনিয়ন, ইইউ-র সাধারণ বাজারে প্রবেশাধিকার ও পরিবেশ, ভোক্তা সুরক্ষা ও শ্রমিকদের অধিকারের ক্ষেত্রে ব্রিটেনে ইইউ-র নিয়মকানুন চালু রাখতে চান৷ লেবার দলের একাংশ কর্বিন-কে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বোঝাপড়ার প্রশ্নে সতর্ক করে দিয়েছে৷ তাঁদের মতে, মে লেবার দলের জন্য হয়তো ফাঁদ পাতছেন৷ বিশেষ করে দ্বিতীয় গণভোটের প্রবক্তারা তাঁর উপর চাপ বাড়াচ্ছেন৷ বৃহস্পতিবারও সরকার ও লেবার পার্টির মধ্যে আলোচনা চলবে৷

গোটা প্রক্রিয়ার জন্য আরও কিছুটা সময় লাগবে বলে মনে করছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী৷ গঠনমূলক আলোচনার মাধ্যমে দুই পক্ষের মধ্যে ঐকমত্যের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দফতর৷ সেই লক্ষ্যে তিনি ইইউ-র কাছে আগামী ১২ই এপ্রিলের সময়সীমা কিছুটা বাড়ানোর অনুরোধ করতে চান৷ অর্থমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ড বলেছেন, সরকার ইইউ-র কাছে দীর্ঘ বিলম্বের আবেদন করতে পারে, যার আওতায় ব্রিটেন ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন করতে পারলে নির্ধারিত সময়ের আগেই ইইউ ত্যাগ করতে পারে৷

বুধবার রাতে ব্রিটেনের সংসদের নিম্ন কক্ষও সামান্য ব্যবধানে একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে, যার আওতায় ব্রেক্সিটের তারিখ পেছানোর দাবি জানানো হয়েছে৷ চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের ঝুঁকি এড়াতে এই প্রস্তাব পেশ করেন লেবার দলের সংসদ সদস্য ইভেট কুপার৷ এবার সংসদের উচ্চ কক্ষেও প্রস্তাবটি অনুমোদন করাতে হবে৷ সেই চেষ্টা সফল হলে প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রেক্সিটে বিলম্বের উদ্দেশ্যে সংসদে প্রস্তাব পেশ করতে হবে৷

ব্রিটেনের সরকার ও সংসদ ব্রেক্সিটের ক্ষেত্রে নতুন করে বিলম্বের পথে অগ্রসর হলেও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এ বিষয়ে কড়া অবস্থান দেখাচ্ছে৷ ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জঁ ক্লোদ ইয়ুংকার বলেন, সর্বশেষ বোঝাপড়া অনুযায়ী ব্রিটেন ২২শে মে পর্যন্ত ব্রেক্সিটের ক্ষেত্রে বিলম্বের আবেদন করতে পারে৷ তবে তার আগে ১২ই এপ্রিলের মধ্যে ব্রিটিশ সংসদে ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন করাতে হবে৷ তা না করলে স্বল্প সময়ের জন্য ব্রেক্সিটের তারিখ পেছানোর কোনো অবকাশ নেই, জানান ইয়ুংকার৷ তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের আশঙ্কা অনেক বেড়ে গেছে৷ উল্লেখ্য, আগামী ১০ই এপ্রিল ব্রেক্সিট নিয়ে আলোচনা করতে এক জরুরি ইইউ শীর্ষ বৈঠক ডাকা হয়েছে৷

এসবি/জেডএইচ (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন