চীনা ভ্যাকসিন শুরু, পাচ্ছেন কারা? | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 19.06.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

চীনা ভ্যাকসিন শুরু, পাচ্ছেন কারা?

চীনের প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মের উদ্ভাবিত টিকা দেয়া শুরু হয়েছে বাংলাদেশে৷ এই ভ্যাকসিনে একাধিক অগ্রাধিকারের কথা বলা হলেও এত অল্প ভ্যাকসিন কতজনকে দেয়া যাবে?

বাংলাদেশে মোট চীনা ভ্যাকসিন এসেছে ১১ লাখ ডোজ৷ দুই ডোজ করে মোট সাড়ে পাঁচ লাখ মানুষকে এই টিকা দেয়া যাবে৷ ভ্যাকসিন দেয়ার প্রথম দিন শনিবার দুই হাজারেরও বেশি মানুষকে এই টিকা দেয়া হয়েছে৷ তবে তা প্রথমে পাচ্ছেন মেডিকেলের শিক্ষার্থীরা৷ এরপর পাবেন যারা প্রবাসী দেশে এসে আটকা পড়েছেন৷ চীনের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়রত যেসব বাংলাদেশি ছাত্র এখন দেশে আছেন এবং বাংলাদেশে অবস্থানরত চীনা নাগরিক৷ কিন্তু কাদের জন্য এই টিকার মধ্যে কত পরিমাণ টিকা রাখা হয়েছে তার খবর দিতে পারছেন না কেউই৷

চীনা টিকার ট্রায়াল বাংলাদেশে আগেই শুরু হয়েছে৷ শনিবার থেকে তা পুরোমাত্রায় দেয়া শুরু হলো৷ আগেই যারা নিবন্ধন করেছেন তারা টিকা পাবেন৷ শনিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজসহ চারটি মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু হয়েছে৷

মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এমবিবিএস ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র মাহদী হাসান নিলয় জানান, যাদের পরীক্ষা আছে তাদের রোল নাম্বার দেখে নিশ্চিত হয়ে টিকা দেয়া হচেছ৷ তাদের অনলাইন রেজিষ্ট্রেশন লাগছে না৷ তিনি নিজেও শনিবার টিকা নিয়েছেন৷

অডিও শুনুন 01:25

‘নতুন রেজিষ্ট্রেশন কবে শুরু হবে তা নিশ্চিত নয়’

এদিকে টিকা নিতে আগ্রহীদের নিবন্ধনের জন্য চালু করা ‘সুরক্ষা’ অ্যাপে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া আপাতত বন্ধ আছে৷ শনিবার শুরু হওয়ার কথা থাকলেও হয়নি৷

ঢাকায় অবস্থানরত চীনা নাগরিক ও চীনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা পড়াশুনা করেন এমন বাংলাদেশি ছাত্র যারা দেশে এসে আটকা পড়েছেন তাদের জন্য ৩৬ হাজার টিকা আলাদা করে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে৷

এর আগে ট্রায়াল পর্যায়ে  দুই হাজার ৬৬২ জনকে চীনা টিকা দেয়া হয়েছে৷ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র ডা. নাজমুল ইসলাম জানান, ‘‘এখন মেডিক্যাল ও নার্সিং স্টুডেন্টরা চীনা ভ্যাকসিন পাচ্ছেন৷ অগ্রাধিকারের তালিকায় যারা আছেন তারাও পাবেন৷ কিন্তু এখন পর্যন্ত আমাদের হাতে তো মাত্র ১১ লাখ ভ্যাকসিন আছে৷ সেই ভ্যাকসিন থেকে যত জনকে দেয়া যায়৷’’

তিনি বলেন, ‘‘অগ্রাধিকারের একটি তালিকা আমাদের কাছে আছে৷ তবে সেই তালিকার সবাই যে এই দফায় ভ্যাকসিন পাবেন তা নিশ্চিত নয়৷ আর নতুন রেজিষ্ট্রেশন এখনো বন্ধ আছে৷ কবে শুরু হবে তা নিশ্চিত নয়৷’’

সব মিলিয়ে চীনা ভ্যাকসিন খুব বেশি মানুষকে দেয়া যাচেছ না৷ চীন থেকে প্রথম পর্যায়ে দেড় কোটি ডোজ টিকা কিনে আনা হলে ব্যাপক ভিত্তিক টিকা দেয়া যাবে৷ আর ফাইজারে এক লাখ ডোজ টিকা এখনো দেয়া শুরু হয়নি৷ শুরু হলে তা তাপমাত্রার কারণে তেজগাঁও ও আশপাশের এলাকায় দেয়া যাবে৷

বাংলাদেশে এখনো ৭২ লাখ ৪৮ হাজার ৮২৯ জন টিকার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করে টিকা নেয়ার অপেক্ষায় আছেন৷ এর আগে অক্সফোর্ডের টিকা দেয়া হয়েছে মোট ৯৯ লাখ ৯৩ হাজার ৯৪৫ ডোজ৷ এরমধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ১৫ জন, আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪১ লাখ ৭৩ হাজার ৯৩০ জন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়