চাইলাম নিরাপদ সড়ক, পেলাম নির্মম রসিকতা! | পাঠক ভাবনা | DW | 07.08.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাঠক ভাবনা

চাইলাম নিরাপদ সড়ক, পেলাম নির্মম রসিকতা!

নিরাপদ সড়কের দাবি রসিকতার সাথে মেনে নিয়েছে সরকার!  ছাত্রলীগ মুক্ত বাংলাদেশ চাই৷ আন্দলোন সফল হবে ইনশা আল্লাহ্৷ এছাড়াও ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় নিরাপদ সড়ক ইস্যুতে নৌ-মন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিসহ নানা মন্তব্য অসংখ্য পাঠকের৷

নিরাপদ সড়কের দাবি রসিকতার সাথে মেনে নিয়েছে সরকার!  ছাত্রলীগ মুক্ত বাংলাদেশ চাই৷ আন্দলোন সফল হবে ইনশা আল্লাহ্৷ এছাড়াও ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় নিরাপদ সড়ক ইস্যুতে নৌ-মন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিসহ নানা মন্তব্য করেছেন অসংখ্য পাঠক৷

নিরাপদ সড়কের দাবি রসিকতার সাথে মেনে নিয়েছে সরকার! – এমনটাই মনে করেন পাঠক মঈনুল হাসান৷ অন্যদিকে পাঠক নীল মনে করেন, নৌ-মন্ত্রীর পদত্যাগ এবং সরকার সবগুলো পদক্ষেপ খুব দ্রুত কার্যকর না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া উচিত৷

সাদিয়া চৌধুরী মুমু সবাইকে আহ্বান জানিয়েছেন ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য৷

পুলিশের কাঁদানে গ্যাসের কারণে অনেক ছাত্র এখন আহত৷ ওদের সাহায্য প্রয়োজন৷ এই অনুরোধ সাদ্দাম হোসেন, মাওরান চৌধুরী, আরিফুল ইসলাম অনিক, অলি সরকার, জেরিন মারুফ, নোমান, নোমান শামীমের৷

শুধু তাই নয়, বাংলাদেশে সঠিক আইন ও আইন প্রয়োগের দাবি করেছেন শাহীন নোমান৷

ইসরাত জাহান ঝিনুক অবশ্য দুঃখ করে লিখেছেন, ‘‘কিশোর-কিশোরীরা বাস ড্রাইভারদের লাইসেন্স চেক করছে৷ অথচ এই কাজটা যাদের করার কথা ছিল, তারা এই ছেলে-পেলেগুলোকে পেটাচ্ছে৷''

‘‘সরকার তো সব কিছুই মেনে নেয়,কিন্তু বাস্তবায়ন তো কোনোকিছুরই হয় না৷'' – মন্তব্য ইমরুল কায়েসের৷

‘‘আমরা শান্তি চাই, সেটা যে কারও পদত্যাগের বিনিময়েই হোক না কেন সমস্যা নাই৷'' এ মন্তব্য পাঠক মো. বিপ্লবের৷

ক'দিন ধরে পোলাপান ছাত্রদের কার্যকলাপ দেখতেছি...৷ এরই মধ্যে সেজুতি নামের একটি মেয়ের পোস্ট আমারে স্ট্যাচু বানায় দিলো৷ ৪৭ বছরেও কেউ এ রকম বলতে পারেনি, যা সেজুতি বলেছে৷ তাঁর কথায়, ‘‘প্রধানমন্ত্রী, আপনাকেও ২০ লাখ টাকা দিয়ে দেই, বাবা হারানোর শোক ভুলে যান৷'' লিখেছেন ডয়চে ভেলের পাঠক

সালেহ উদ্দিন ৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবরতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন