চরমভাবাপন্ন আবহাওয়ার কারণে ক্ষতি ১২৯ বিলিয়ন ডলার! | বিশ্ব | DW | 31.10.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

চরমভাবাপন্ন আবহাওয়ার কারণে ক্ষতি ১২৯ বিলিয়ন ডলার!

কেবল চরম আবহাওয়ার কারণে গত বছর বৈশ্বিক অর্থনীতিতে প্রায় ১২৯ বিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়৷ এক রিপোর্টে এ তথ্য জানানো হয়েছে৷ প্রতিবেদনে বলা হয়, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে যেহেতু খরা, ঝড় ও বন্যা বাড়ছে, তাই ক্ষতির পরিমাণও বাড়তেই থাকবে৷

২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত মাত্র তিন বছরে আবহাওয়াজনিক দুর্যোগ ৪৬ শতাংশ বেড়েছে৷ এছাড়া গত বছর রেকর্ড ৭৯৭টি দুর্যোগের ঘটনা ঘটে৷ মঙ্গলবার ল্যান্সেট মেডিকেল জার্নালের গবেষণা প্রতিবেদনে এসব তথ্য প্রকাশিত হয়৷

১২৯ বিলিয়ন ডলার ক্ষতির এই পরিমাণ সামগ্রিকভাবে কোনো কোনো দেশের বাজেটের প্রায় সমান৷ যেমন, ফিনল্যান্ড৷ ক্ষতির হিসাব করতে গেলে সাধারণত চরম কোনো ঘটনায় আহত বা নিহতের সংখ্যা নিরুপণ করা হয়৷ অথচ কখনোই ‘অর্থনৈতিক মূল্য' অন্তর্ভুক্ত করা হয় না৷

প্রতিবেদনটির গবেষক বলেন, ‘‘জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব যে দিন দিন বাড়ছে এবং তীব্রতর হচ্ছে এ ধরনের হিসাব আবারও তা প্রমাণ করে৷''

দরিদ্র দেশগুলোর আর্থিক অবস্থার ওপর জলবায়ু পরিবর্তনমারাত্মকভাবে আঘাত হানছে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থাসহ ২৪টি অ্যাকাডেমিক প্রতিষ্ঠান ও আন্তঃসরকার সংস্থার বিশেষজ্ঞ মিলে তৈরি করা রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে৷

খাদ্যশস্য উৎপাদন কমবে, পোকামাকড়বাহিত রোগের বিস্তার হবে

গবেষকদের মতে, তাপমাত্রা বাড়ার কারণে ২০০০ সালের পর থেকে খোলা জায়গায় শ্রমিকদের কাজ করার হার ৫ দশমিক ৩ ভাগ কমেছে৷ এই সময়ে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে হিট স্ট্রোক, হৃদরোগ ও পানিশূণ্যতা আগের তুলনায় ১২৫ মিলিয়ন বেড়েছে৷

‘‘জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে খাদ্যশস্য উৎপাদনের ওপর মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ এক ডিগ্রি সেলসিলায়াস তাপমাত্রা বাড়ার কারণে বিশ্বব্যাপী গম উৎপাদনের পরিমাণ ছয় শতাংশ এবং ধানের উৎপাদন কমবে ১০ শতাংশ'' বলা হয় ল্যান্সেট এর গবেষণায়৷ আর এর ফলে ভয়াবহ হারে বাড়তে থাকবে ক্ষুধার্তের সংখ্যা৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য জলবায়ু চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করেছেন, যদিও তা কার্যকর হতে আরও প্রায় চার বছর লেগে যাবে৷

প্রতিবেদনে বলা হয়, উচ্চতাপমাত্রা, বন্যা, ঘুর্ণিঝড়ের কারণে জীবনের ঝুঁকি যেমন বাড়বে, তেমনি পানিজনিত ঝুঁকিপূর্ণ নানা রোগ, পোকামাকড়ের বহন করা রোগব্যাধির বিস্তারও ঘটবে৷ ফলে দীর্ঘমেয়াদী শারীরিক ঝুঁকি বাড়বে৷

এএম/এসিবি (এএফপি)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন