চন্দ্রযানের সঙ্গে ভারতের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 07.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

চন্দ্রযানের সঙ্গে ভারতের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

চাঁদে ল্যান্ডিং-এর জন্য পাঠানো ভারতের প্রথম মহাকাশযান চন্দ্রযান-২ এর সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ হারিয়েছে দেশটির মহাকাশ সংস্থা৷ চাঁদ স্পর্শ করার ঠিক আগেই সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়৷ ফলে মিশন ব্যর্থ হয়েছে কিনা, তাও এখনও স্পষ্ট নয়৷

শনিবার চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে নামার কথা ছিল চন্দ্রযান-২ এর৷ এখন পর্যন্ত মিশন সম্পর্কে কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়া হয়নি৷

২২ জুলাই চাঁদের উদ্দেশ্যে নিক্ষিপ্ত হয় চন্দ্রযান-২৷ চাঁদের মাটি স্পর্শ করতে পারলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীনের পর কেবল চতুর্থ দেশ হিসেবে নাম লেখাতো ভারত৷ কিন্তু আপাতদৃষ্টিতে ভারতের সে অপেক্ষা আরো কিছুদিন বাড়লো বলেই মনে হচ্ছে৷

মিশন কন্ট্রোল রুম থেকে ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অরগানাইজেশন- আইএসআরও এর চেয়ারম্যান কাইলাসাভাদিভু সিভান বলেছেন, ‘‘বিক্রম ল্যান্ডার পরিকল্পনা অনুযায়ীই এগিয়ে যাচ্ছিলো, সবকিছুই স্বাভাবিক ছিল৷ কিন্তু হঠাৎই গ্রাউন্ড স্টেশনের সঙ্গে সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে৷ আমরা সব তথ্য পর্যালোচনা করে দেখছি৷''

ইন্দো-এশিয়ান নিউজ এজেন্সি- আইএএনএস নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আইএসআরও কর্মকর্তার বরাত দিয়ে জানিয়েছে, এখনই মহাকাশযানটির ভাগ্য নিয়ে মন্তব্য করার সময় আসেনি৷ তিনি বলেছেন, ‘‘অভিযানের কেবল পাঁচ শতাংশ আমরা হারিয়েছি৷ বিক্রম ল্যান্ডার ও প্রজ্ঞান রোভারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে৷ কিন্তু চাঁদের কক্ষপথে এখনও চন্দ্রযান-২ প্রদক্ষিণ করছে৷ এটা একটা সাফল্য৷''

তিনি জানান, কক্ষপথ থেকে ল্যান্ডারের ছবি তুলে পাঠাতে পারবে চন্দ্রযান-২৷

প্রশংসায়পঞ্চমুখমোদি

ল্যান্ডিং দেখতে শনিবার বেঙ্গালুরুর আইএসআরওতে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ যোগাযোগ বিচ্ছিন্নের ঘোষণার পর তিনি বলেন, ‘‘জীবনে উত্থান-পতন আছেই৷ আপনাদের কঠোর পরিশ্রম আমাদের অনেক কিছু শিখিয়েছে এবং পুরো দেশ আপনাদের নিয়ে গর্বিত৷ যোগাযোগ আবার স্থাপন করা গেলে আমাদের যাত্রা চলবে৷''


আইএসআরওতে ভাষণ দেয়ার পর সংস্থার প্রধান সিভানকে জড়িয়ে ধরে সান্ত্বনা দেন মোদি৷

এডিকে/এআই

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন