চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের ওয়েবসাইটে তথ্যের ঘাটতি | অন্বেষণ | DW | 11.01.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের ওয়েবসাইটে তথ্যের ঘাটতি

বাংলাদেশের প্রধান সামুদ্রিক বন্দরের অবস্থান চট্টগ্রামে৷ সে কারণে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এই শহরটিকে বলা হয় বন্দর নগরী৷ তবে সমুদ্র বন্দরের ওয়েবসাইটে তথ্যের বেশ ঘাটতি রয়েছে৷

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে প্রতিবছর কয়েক লাখ কন্টেইনার পরিবহণ হয়৷ বন্দর কর্তৃপক্ষের ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১১ সালে চট্টগ্রাম সামুদ্রিক বন্দর থেকে কন্টেইনার পরিবহণের পরিমাণ ছিল ৫,৫৬,৭৮১ টি৷

২০১১ সালের পর আরো দু'টি বছর পেরিয়ে গেছে৷ তবে বন্দরের ওয়েবসাইটে বছর দু'টির পরিসংখ্যান এখনো যোগ হয়নি৷ শুধু তাই নয়, ওয়েবসাইটের প্রথম পাতায় এখনো প্রদর্শিত হচ্ছে ‘ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০১০'-এর খবর৷ অথচ বাংলাদেশে আমদানি-রপ্তানি পণ্যের ৯২ শতাংশ পরিবহণ হয় এই বন্দর থেকে৷ ফলে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি সংস্থার ওয়েবসাইটে হালনাগাদ তথ্য থাকা বাঞ্চনীয়৷

সাইটটির প্রথম পাতায় থাকা প্রথম তিনটি সংবাদের সঙ্গে থাকা ‘রিড মোর' বাটনও কাজ করছে না৷ তবে সাইটটির নীচের দিকে জাহাজের অবস্থান এবং জোয়ারভাটা সংক্রান্ত হালনাগাদ তথ্য প্রদর্শন হচ্ছে৷ আর সাম্প্রতিক ঘটনাবলির ছবিঘরে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘পানগাঁও টার্মিনাল' উদ্বোধনের ছবি৷

এদিকে, চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে ক্ষতির শিকার হচ্ছে বন্দর কর্তৃপক্ষ৷ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, কনটেইনার পরিবহণের প্রায় ৯৫ শতাংশ সড়কপথ এবং ৫ শতাংশ রেলপথে হয়ে থাকে৷ হরতাল, অবরোধের মতো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পণ্য পরিবহণে বিঘ্ন ঘটে৷ এতে করে আমদানি পণ্য যেমন বন্দরে আটকে যায়, তেমনি রপ্তানির জন্য পণ্য জাহাজে তোলা যায় না৷

বাংলাদেশের চট্টগ্রাম ও মংলা সমুদ্র বন্দর ব্যবহারে প্রতিবেশী দেশ ভারত এবং ভুটানের বিশেষ আগ্রহ রয়েছে৷ এই আগ্রহের বাস্তবায়ন সম্ভব হলে বাংলাদেশের বাড়তি অর্থ আয়ের একটি উপায় তৈরি হবে৷ সম্প্রতি তৃতীয় একটি বন্দর নির্মাণেরও উদ্যোগ নিয়েছে সরকার৷

উল্লেখ্য, সমুদ্র সংক্রান্ত পত্রিকা লয়েড-এ প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর হচ্ছে পৃথিবীর ৯০তম ব্যস্ত সমুদ্র বন্দর৷ প্রতিনিয়ত এই বন্দরের চাহিদা বাড়ছে৷ বিশেষ করে বাংলাদেশের অন্যতম রপ্তানি পণ্য পোশাক খাত অনেকটা এই বন্দরের উপরই নির্ভরশীল৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন