চট্টগ্রামের দেবযানী জার্মানিতে গড়ছেন পরিবেশবান্ধব বিমান | বিশ্ব | DW | 30.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

প্রবাসে সফল যারা

চট্টগ্রামের দেবযানী জার্মানিতে গড়ছেন পরিবেশবান্ধব বিমান

পরিবেশবান্ধব বিমান? সে আবার কী! এটা ঠিক, পরিবেশ দূষণে এক বড় ভূমিকা রাখছে বিমান৷ কিন্তু এই খাতে কি এমন কোনো বিমান ব্যবহার সম্ভব যা পরিবেশের কোনো ক্ষতি করবে না? জার্মানিতে এমন এক গবেষণায় রয়ছেন বাংলাদেশের দেবযানী ঘোষ৷

কোনো সাধারণ বিমান নয়, প্রথাগত জ্বালানি ছাড়া উড়তে সক্ষম এক বিমান নিয়ে গবেষণা চলছে জার্মানিতে৷ ইলেক্ট্রিক এই বিমান তৈরির পেছনে বিশ্বের খ্যাতিমান গবেষকদের সঙ্গে রয়েছেন বাংলাদেশের এক মেয়ে৷ জার্মানির উল্ম বিশ্ববিদ্যালয়ের ​​​​​​ একজন গবেষক দেবযানী ঘোষ৷

হাইড্রোজেন ফুয়েল সেল ব্যাটারি সিস্টেম থেকে পাওয়া শক্তিতে চলবে হাইফোর বা এইচওয়াইফোর নামে পরিচিত বিমানটি৷ এভাবে উৎপাদিত জ্বালানি পরিবেশের কোনো ক্ষতি করবে না, অর্থাৎ, বিমানটি চলার সময় কার্বন ডাই অক্সাইড নিঃসরণ একেবারেই হবে না৷

এমন বিমান পৃথিবীতে এটাই প্রথম৷ জার্মানির মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ডিএলআর-এর পৃষ্ঠপোষকতায় হাইফোর বিমান তৈরির প্রকল্পে সম্পৃক্ত রয়েছে উল্ম বিশ্ববিদ্যালয়সহ একাধিক প্রতিষ্ঠান৷ উল্ম বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রকল্পের নেতৃত্বে রয়েছেন প্রফেসর ইয়োসেফ ক্যালো৷ তাঁর অধীনে কাজ করছেন দেবযানীর মতো বেশ কয়েকজন তরুণ গবেষক৷ ইতোমধ্যে সাড়া জাগিয়েছে তাঁদের গবেষণা৷

ইতোমধ্যে সফলভাবে পরীক্ষামূলক উড়াল সম্পন্ন করেছে চার সিটের হাইফোর বিমান৷ চলছে আরো বড় বিমান তৈরির কাজ৷ মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন মনে করে, বর্তমানের যে পাঁচটি উদ্ভাবন ভবিষ্যতে বিশ্বকে রক্ষা করবে, তার একটি এই বিমান৷ গবেষকদেরও আশা, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে স্বল্প দূরত্বে যাত্রী পরিবহনে পরিবেশবান্ধব এই বিমান ব্যবহার সম্ভব হবে৷ এসংক্রান্ত ভিডিও প্রতিবেদনটি দেখতে ক্লিক করুন এখানে

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন