ঘ্রাণ নিতে না পারলেও সুগন্ধি তৈরি | বিশ্ব | DW | 08.06.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র

ঘ্রাণ নিতে না পারলেও সুগন্ধি তৈরি

উন্নত বিশ্বে কলকারখানায় উৎপাদন কাজে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগানোর বিষয়টি আর নতুন নয়৷ তবে বুদ্ধিমত্তা যেহেতু কৃত্রিম, তাই এর রয়েছে সীমাবদ্ধতাও৷ যেমন, তার নাক নেই বলে সে ঘ্রাণ নিতে পারে না ৷

ঘ্রাণ নিতে না পারা কৃত্রিমভাবে বুদ্ধিমান যন্ত্র দিয়ে পারফিউম উৎপাদনকারী অ্যামেরিকান বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান সিমরাইজ ব্রাজিলের বাজারের জন্য একটি পারফিউম তৈরি করতে যাচ্ছে৷ চলতি মাসে বাজারে আসার কথা পারফিউমটি৷ মজার বিষয়  যার  কোন ঘ্রাণশক্তিই নেই সে কিনা বানাচ্ছে সুগন্ধি!

কৃত্রিমবুদ্ধির এ যন্ত্রটির নাম ফিলিরা ৷  প্রতিষ্ঠানটির  কর্মকর্তা ডেভিড আপেল বলেন, এটা ঠিক যে, কৃত্রিম বুদ্ধি ধারণ করা এ যন্ত্রগুলোর কোন আবেগ বা বিবেক নেই৷ আর লিঙ্গ থাকারতো প্রশ্নই আসে না৷ যদিও আপেল এ যন্ত্রটিকে ‘মেয়ে' হিসেবে ভাবতে পছন্দ করেন৷ ‘‘আমি দীর্ঘদিন ধরে এর সাথে কাজ করছি, একে মেয়ে হিসেবে ভাবতেই ভালো লাগে আমার৷ প্রথমে আমি তাঁকে কাজ শিখিয়েছি, আর এখন সে আমাকে কাজ শেখায়'', কৃত্রিম বুদ্ধিমান যন্ত্র ফিলিরার কাজের দক্ষতার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন আপেল৷

যন্ত্রনয়, লাইব্রেরি

পারফিউম বানানোর বিষয়টি অনেকটা রান্না করার মতো৷ এটা একধরনের কৌশল যেখানে একজন নির্মাতা নানা ধরনের উপাদান মিশিয়ে প্রয়োজনীয় ঘ্রাণটি তৈরি করেন৷ তবে যন্ত্র হলেও একই পদ্ধতিতে কাজ করে ফিলিরা৷ তার মস্তিস্কে জমা আছে পারফিউমের জন্য প্রয়োজনীয় হাজার হাজার উপাদানের নাম৷ সে জানে, কোন দেশের মানুষের জন্য কিংবা কোন বয়সীদের জন্য বাজারে কোন পারফিউমটির ভালো চাহিদা আছে৷ ‘‘যন্ত্রটির একটি বোতামে চাপলেই সুনির্দিষ্ট ক্রেতাদের জন্য পারফিউম বানানোর সুনির্দিষ্ট প্রণালী আপনাকে জানিয়ে দেবে সে,'' বলেন আপেল৷

এদিকে, কর্মক্ষেত্রে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার এ প্রয়োগ আতঙ্কিত করেছে অনেককেই৷ তাঁরা ভাবছেন, এর ফলে হয়তো মানুষের জন্য কর্মসংস্থানের সংকট তৈরি হতে পারে৷ তবে ফিলিরার সাথে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসা আপেল কিন্তু সেরকম ভাবছেন না৷ তিনি বলেন, ‘‘কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার এ প্রয়োগ মানুষ ও যন্ত্রের কাজের মধ্যে একটি সুন্দর সমন্বয় ঘটাবে৷'' এমনকি মানুষ যে কাজটি করতে পারতো না, বা পারে না সে কাজটি করে দিতে পারছে যন্ত্র, বলেন আপেল৷

ঘ্রাণ শক্তি না থাকলেও ফিলিরা পারফিউম তৈরি করছে, এ বিষয়ে বলতে গিয়ে সিমরাইজ এর ‘সেন্ট এন্ড কেয়ার' বিভাগের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য আখিম ডাউব বলেন, ‘‘পারফিউম ব্যবসায় নিয়োজিতদের প্রখর ঘ্রাণশক্তি থাকার প্রয়োজন নেই৷ প্রয়োজন শুধু পারফিউম তৈরির উপাদানগুলোকে সমন্বয় করার দক্ষতা৷ আর সে কাজটি ফিলেরা খুব সফলভাবেই করছে,'' বলেন তিনি৷

মানুষের সাথে প্রতিযোগিতায় যন্ত্র

কর্মক্ষেত্রে কৃত্রিম বুদ্ধিমান যন্ত্রের প্রয়োজনীয়াতার কথা বলেতে গিয়ে জার্মানির ডর্টমুন্ড প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিভাগের অধ্যাপক ক্যাঠারিনা মরিক বলেন, কয়েক বছর আগেও কর্মক্ষেত্রে শুধু কম্পিউটার ব্যবহার করা হতো৷ কিস্তু কম্পিউটারে আপনি যে তথ্য দেবেন এটি সে পর্যন্তই কাজ করবে৷ আর একজন মানুষকে তা পরিচালনা করতে হবে৷ কিন্ত মেশিন লার্নিংয়ের বিষয়টি ভিন্ন৷ মেশিন লার্নিং প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে কম্পিউটার নিজেই তার কাছে থাকা তথ্যকে যাচাই বাছাই করে সিদ্ধান্ত নিতে পারে, বলেন তিনি৷

ফিলেরার ক্ষেত্রেও ঘটনাটি তাই৷ মেশিন লার্নিং প্রযুক্তি থাকায়, ফিলেরা নিজে পারফিউমটি বানাতে কোন কোন উপাদানের সমন্বয় ঘটাতে হবে তা যাচাই বাছাই করে নেয়৷

আর এ সফলতা থেকেই, কসমেটিকস কোম্পানি ও বোটিকারিও, মার্কিন প্রতিষ্ঠান সিমরিজে‘র সাথে তিনটি ভিন্ন ধরণের পারফিউম বানানোর জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে৷ পারফিউম তিনটি আগামী ১২ জুন ব্রাজিলের ‘ভালোবাসা দিবস' উপলক্ষে বাজারে আসবে৷

ব্রিগেট্টে অস্টেরাথ /আরআর              

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন