গ্রিসের পথে মুক্ত ইরানি ট্যাংকার | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 19.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইরান

গ্রিসের পথে মুক্ত ইরানি ট্যাংকার

জিব্রাল্টার প্রণালীতে আটক থেকে আদালতের নির্দেশে মুক্তির পর ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে সোমবার গ্রিসের দিকে যাত্রা করেছে ইরানি ট্যাংকার৷

গ্রেস ১ নাম বদলে দারিয়া ১ নাম ধারণ করে ট্যাংকারটি রোববার ১১টার দিকে জিব্রাল্টার থেকে যাত্রা করে৷ সোমবার সকালে এটি গ্রিসের কালামাতায় অবস্থান করছিল বলে রেফিনিটিভ জাহাজ ট্র্যাকিংয়ে ধরা পড়ে বলে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে৷

এমন পরিস্থিতিতে ওয়াশিংটনকে সতর্ক করে তেহরান বলছে, যুক্তরাষ্ট্র ট্যাংকারটি আটকের কোনো পদক্ষেপ নিলে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ৷

যুক্তরাজ্যের রাজকীয় নৌবাহিনীর মেরিন ইউনিটের সদস্যদের সহায়তায় জিব্রাল্টারের কর্মকর্তারা ৪ জুলাই ইরানের সুপার-ট্যাংকার গ্রেস ১ জব্দ করে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে ওই ট্যাংকারটিতে ইরান থেকে সিরিয়ায় অশোধিত তেল নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে সন্দেহ করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে ট্যাংকারটিকে মুক্তি দেওয়া হলেও পরদিন ওয়াশিংটনের একটি ফেডারেল আদালত ট্যাংকারটি আটকের পরোয়ানা জারি করে৷ ইরানের সস্ত্রাসী সংগঠন ইসলামিক রেভোলিউশনারি গার্ড কর্পস (আইআরজিসি) এর সঙ্গে যোগসূত্র রয়েছে দাবি তুলে ওয়াশিংটন ট্যাংকারটি আটক রাখতে চেয়েছিল৷

তবে রোববার জিব্রাল্টার বলছে, ইইউ আইন অনুযায়ী তারা যুক্তরাষ্ট্রের ওই অনুরোধ রাখতে পারছে না৷ এনিয়ে গ্রিসও তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি৷

ইরান বলছে. যুক্তরাষ্ট্র ট্যাঙ্কারটি জব্দের কোনো চেষ্টা করলে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ৷ জিব্রাল্টার থেকে জাহাজটি যাত্রা শুরুর পর সোমবার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়র মুখপাত্র আব্বাস মুসাবি বলেছেন, ''যুক্তরাষ্ট্র যদি জাহাজটি আটকের অনুরাধ করে বা এ জাতীয় পদক্ষেপ, এমনকি এ নিয়ে কথা বললেও উন্মুক্ত সমুদ্রে জাহাজ চলাচল ব্যবস্থা বিপন্ন হবে৷''

ট্যাংকারটিকে ঠিকভাবে গন্তব্যে নিয়ে আসতে ইরান তাদের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে বিভিন্ন দূতাবাসে প্রয়োজনীয় সতর্কতা জারি করেছে৷ দেশটির একজন জ্যেষ্ঠ আইনপ্রণেতা বলেছেন, ব্রিটেন ও ইরানের সম্পর্কে সংকট তৈরি হয়েছে৷ ইরানের ট্যাংকারটি গন্তব্যে না পৌঁছা পর্যন্ত তেহরান ব্রিটিশ পতাকাবাহী যে ট্যাংকার আটক করেছে তার সুরাহা হবে না৷

জিব্রাল্টারে ইরানি ট্যাংকার জব্দের পর ইরানের বিপ্লবী রক্ষীবাহিনী গত ১৯ জুলাই হরমুজ প্রণালী থেকে একটি ব্রিটিশ তেলবাহী ট্যাংকার আটক করে৷

ইরানের জাতীয় সংসদের জাতীয় সুরক্ষা এবং পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির সদস্য হেশমাতুল্লাহ ফালাহাতপিশেহ বলেন, ''ইরানী তেল ট্যাংকার তার গন্তব্যে না পৌঁছানো পর্যন্ত ব্রিটিশদের অবশ্যই এই সঙ্কট শেষ করতে সহায়তা করতে হবে৷ এর অর্থ হলো ব্রিটেনের সঙ্গে সংকট শেষ হয়নি। তেল ট্যাংকার নিয়ে এই সংকট শেষ করার প্রাথমিক দায়বদ্ধতাও ব্রিটেনের৷''

জিব্রাল্টার প্রণালীতে ইরানি তেল ট্যাংকার জব্দের জন্য যুক্তরাজ্যকে মারত্মক পরিণতি ভোগ করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে আসছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

এসআই/কেএম (রয়টার্স)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন