গ্রিসকে বাঁচাতে এবার তত্পর ইইউ | বিশ্ব | DW | 20.03.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গ্রিসকে বাঁচাতে এবার তত্পর ইইউ

ঋণের জাল থেকে মুক্তি পেতে গ্রিস যাতে আইএমএফ-এর দ্বারস্থ না হয়, সেদিকে তাকিয়েই এবার উঠেপড়ে লেগেছে ইউরোপীয় কমিশন৷ ইইউ-র সদস্য দেশগুলির কাছে অবিলম্বে বেইল আউটের আর্জি জানিয়েছেন বারোসো৷

default

ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান বারোসো

জাতীয় ঋণের পরিমাণ ক্রমশই বেড়ে গেছে গ্রিসের৷ চরম আর্থিক সংকোচন নীতিও তাদের রক্ষা করতে ব্যর্থ৷ এই অবস্থায় সেদেশের সরকার সাফ বলে দিয়েছে, আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল বা আইএমএফের দ্বারস্থ হবে তারা৷ কারণ যে পরিস্থিতিতে অ্যাথেন্স এখন পড়েছে, তার থেকে বাঁচতে গেলে বিপুল বেইল আউট দরকার তাদের৷

কিন্তু গ্রিস যদি আইএমএফ-এর দ্বারস্থ হয় অর্থের জন্য, তাহলে ইউরোপের জন্য, বিশেষ করে ইউরোজোন-এর অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির জন্য তা হয়ে উঠবে যথেষ্ট লজ্জার বিষয়৷ দক্ষিণ ইউরোপের এই দেশটি ইউরোজোনের মধ্যেই অন্তর্ভুক্ত৷ অভিন্ন ইউরো মুদ্রা ব্যবহারকারী কোন দেশ ইতিপূর্বে নিজেদের দারিদ্র মোচন করতে আইএমএফ-এর কাছে হাত পাতে নি৷ তাই অ্যাথেন্স যাতে এই শেষ পথ বেছে না নেয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে এখন আসরে নেমেছে ইউরোপীয় কমিশন৷ শুক্রবার ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট খোসে মানুয়েল বারোসো অতএব ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যান্য দেশগুলির কাছে আর্জি জানিয়েছেন, গ্রিসকে এই চরম বিপর্যয় থেকে টেনে তুলতে এগিয়ে আসুক সকলে৷ সকলে মিলে একসঙ্গে অর্থসাহায্যের মাধ্যমে একটি বেইল আউট করে বাঁচিয়ে তোলা হোক গ্রিসকে৷ এবং এর জন্য বেশি সময় হাতে নেই, একথাও বলেছেন বারোসো৷

Griechenland Finanzkrise Steiks und Demonstrationen in Athen Flash-Galerie

বেকায়দায় পড়া অর্থনীতির দেশ গ্রিসে সরকারি আর্থিক সংকোচ নীতির প্রতিবাদে লেগেই রয়েছে বিক্ষোভ আন্দোলন৷ অ্যাথেন্সের রাজপথে ছাত্র পুলিশ সংঘর্ষের ছবি৷

জরুরি ভিত্তিতে গ্রিসের জন্য এই সাহায্য পরিকল্পনার বিষয়টি আগামী ২৫ আর ২৬ মার্চের আসন্ন সম্মেলনে আলোচিত হবে বলে জানিয়েছেন বারোসো৷ তিনি জানান, গ্রিসের ঠিক কী পরিমাণ অর্থ এই মুহূর্তে প্রয়োজন তা জানা না থাকলেও, ধারণা করা হচ্ছে আশু সংকট মোচনের জন্য নিদেনপক্ষে বাইশ মিলিয়ন ইউরো প্রয়োজন পড়বে গ্রিসের৷ ইইউ এই অর্থ দিতে পারে বটে, তবে সেক্ষেত্রে বেশ কিছু শর্ত আরোপের প্রশ্নও থেকে যাবে গ্রিসের জন্য, বলেছেন বারোসো৷

কিন্তু, গ্রিসের জন্য এই বেইল আউটের প্রস্তাবে প্রথম থেকেই গররাজি ইইউ-র সবচেয়ে ধনী দেশ বলে বিবেচিত জার্মানি৷ যদিও গ্রিস যখন ইউরোপের সীমানা ছাড়িয়ে আইএমএফ-এর কাছে অর্থ সাহায্যের জন্য দরবার করতে যাবে বলে জানিয়েছে, জার্মানি কিন্তু তাতেও আপত্তি জানিয়েছে৷ কারণটা খুবই স্পষ্ট, ইউরোপ এবং ইউরোর সম্মান রক্ষার্থেই জার্মানির এই আপত্তি৷ সুতরাং, ব্রাসেলসে আগামী সপ্তাহের বৈঠকে গ্রিসের জন্য যে তহবিলের প্রসঙ্গ উঠতে চলেছে, জার্মানি তাতে কীভাবে সংযুক্ত হয় সেটাও দেখার বিষয় হবে অবশ্যই৷

প্রতিবেদন- সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা- জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন