গ্রামীণ ব্যাংক ছাড়লেন ড. ইউনূস? | বিশ্ব | DW | 23.12.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গ্রামীণ ব্যাংক ছাড়লেন ড. ইউনূস?

গ্রামীণ ব্যাংক থেকে ড. মুহাম্মদ ইউনূস পদত্যাগ করেছেন৷ এমন খবর দিয়েছে সমকাল আর যুগান্তর৷ দুটো পত্রিকাই প্রধান শিরোনাম করেছে খবরটিকে৷

default

ড. ইউনূস

তবে সমকাল তাদের শিরোনামে প্রশ্নবোধক চিহ্ন ব্যবহার করেছে৷ এর মানে গ্রামীণ ব্যাংক থেকে ড. ইউনূস কী আসলেই পদত্যাগ করেছেন কী না সেটা পত্রিকাটিও নিশ্চিত নয়৷ কিন্তু যুগান্তরের শিরোনামে প্রশ্নবোধক চিহ্ন নেই৷ তবে কোথা থেকে তারা এ ব্যাপারে নিশ্চিত হলেন সেই সূত্রের উল্লেখ করেনি যুগান্তর৷ এদিকে সমকাল বলছে, অর্থমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগপত্রটি জমা দেওয়া হয়েছে৷ তবে কোনো সূত্র থেকে এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি সমকাল৷

উইকিলিক্সে বাংলাদেশ

গার্ডিয়ানে যে অংশটুকু প্রকাশিত হয়েছে তাতে মূলত চারটি বিষয় এসেছে৷ এগুলো হলো ব়্যাবের প্রশিক্ষণ, ফুলবাড়ী কয়লা খনি প্রসঙ্গ, হাসিনা-ভারত সম্পর্কের খবর ও মাদ্রাসা শিক্ষা৷ তবে ঢাকার বেশিরভাগ পত্রিকাতে ব়্যাবের বিষয়টিই গুরুত্ব পেয়েছে৷ যেমন ডেইলি স্টার, প্রথম আলো, ইত্তেফাক আর সমকালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব়্যাবের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ থাকায় এর সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিতে চায়নি যুক্তরাষ্ট্র৷ কিন্তু যুক্তরাজ্য ঠিকই প্রশিক্ষণ দিয়েছে৷ এ ব্যাপারে প্রথম আলো দুদেশের প্রতিক্রিয়া ছেপেছে৷ আর সমকাল বলছে, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের জন্য মানবাধিকার সংস্থা ও পশ্চিমা দেশগুলো ব়্যাবের তীব্র সমালোচনা করলেও ব়্যাবকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে যুক্তরাজ্যই৷ কালের কন্ঠ ফুলবাড়ী কয়লা খনি প্রসঙ্গটিকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে৷ তাদের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে যে, উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা তোলার অনুমতি দিতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে চাপ দিয়েছিল৷ আর যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ঐক্যমত পোষণ করেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী, বলছে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷ এছাড়া এই অনলাইন সংস্থাটি বলছে, হাসিনার বিরুদ্ধে 'ভারত-ঘনিষ্ঠতা', এই প্রচার বিষয়ে ভারত সতর্ক, বলে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মনে করেন৷

সাকা চৌধুরীর অবস্থা

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর জামিনের আবেদন নাকচ করে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত৷ সব পত্রিকায় আছে খবরটি৷ এদিকে প্রথম আলো বলছে, সাকার মুক্তির জন্য চট্টগ্রাম বিএনপি নেতারা আন্দোলন করতে আগ্রহী নন৷ কারণ তারা মনে করছেন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর গ্রেপ্তার দল নয়, একজন বিতর্কিত নেতার ওপর সরকারের আঘাত৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন