গির্জায় হত্যাকাণ্ড ছিল ড্রোন হামলার প্রতিশোধে | বিশ্ব | DW | 23.09.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

গির্জায় হত্যাকাণ্ড ছিল ড্রোন হামলার প্রতিশোধে

রবিবার পাকিস্তানের পেশোয়ারে এক গির্জায় দুটি আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮১'তে৷ এদিকে, ‘জুনদ উল-হিফসা' নামের এক তালেবান সংশ্লিষ্ট গোষ্ঠী এই হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেছে৷

এই জঙ্গী গোষ্ঠীর এক মুখপাত্র আমহেদ মারওয়াত বার্তা সংস্থা এএফপিকে টেলিফোনে বলেছেন, ‘‘তালেবান ও আল-কায়েদা সদস্যদের উপর মার্কিন ড্রোন আক্রমণের প্রতিশোধে এই বোমা হামলা চালানো হয়েছে৷ ড্রোন হামলা বন্ধ না হলে ভবিষ্যতে আবারও বিদেশি এবং অ-মুসলিমদের উপর হামলা করা হবে বলে জানান তিনি৷''

পেশোয়ার কেন্দ্রীয় হাসপাতালের চিকিৎসক আরশাদ জাভেদ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮১'তে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন, যার মধ্যে ৩৭ জন নারী রয়েছেন৷ আহত হয়েছেন ১৩১ জন৷

বোমা হামলার প্রতিবাদ এবং আরও নিরাপত্তার দাবিতে পাকিস্তান জুড়ে বিক্ষোভ করেছেন খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের লোকেরা৷ ‘অল পাকিস্তান মাইনোরিটিস অ্যালায়েন্স' এর প্রেসিডেন্ট পল ভাট্টি বলছেন, ‘‘এটা পরিষ্কার যে এটা একটা সন্ত্রাসী হামলা ছিল৷ তবে শুধু যে খ্রিস্টানরাই হামলার শিকার হচ্ছেন তা নয়, সমগ্র পাকিস্তানেই এমন হচ্ছে৷'' তাঁর মতে, রবিবারের হামলাই হচ্ছে পাকিস্তানে খ্রিস্টানদের ওপর সবচেয়ে বড় হামলা৷

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, এটা ইসলামি বিশ্বাসের পরিপন্থী৷

জেডএইচ / এসি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন