গরিবদের আরও পাঁচ মাস ফ্রি চাল-গম | বিশ্ব | DW | 30.06.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

গরিবদের আরও পাঁচ মাস ফ্রি চাল-গম

ভারতে ৮০ কোটি মানুষকে আরও পাঁচ মাস বিনা পয়সায় প্রতি মাসে চাল-গম দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই ঘোষণা করেছেন।

লকডাউন শুরু হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনার কথা ঘোষণা করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। তিন মাস প্রতিটি গরিব পরিবারের প্রত্যেক সদস্যকে মাসে পাঁচ কেজি করে চাল বা গম দেওয়া হবে। মঙ্গলবার ৩০ জুন সেই সময়সীমা শেষ হচ্ছে। তাই নরেন্দ্র মোদী এ দিন ঘোষণা করলেন, নভেম্বর পর্যন্ত দেশের ৮০ কোটি লোককে বিনা পয়সায় মাথাপিছু পাঁচ কিলো করে চাল বা গম এবং এক কিলো ছোলা দেওয়া হবে।

মোদী জানিয়েছেন, এর জন্য সরকারের ৯০ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। গত তিন মাসের খরচ ধরলে সব মিলিয়ে গরিবদের আট মাস ধরে বিনা পয়সায় রেশন দিতে সরকার দেড় লক্ষ কোটি টাকা খরচ করবে। মোদী এটাও জানিয়েছেন, ৮০ কোটি লোক মানে সংখ্যার হিসাবে তা  ইউরোপীয় ইউনিয়নের জনসংখ্যার দ্বিগুণ, ব্রিটেনের বারো গুণ এবং অ্যামেরিকার আড়াই গুণ।

মোদী বলেছেন, নভেম্বর পর্যন্ত দেশে একের পর এক উৎসব আছে। সরকার দুর্গাপুজো, দেওয়ালি ও ছট পর্যন্ত লোকেদের বিনা পয়সায় রেশন দেবে। ছট হলো বিহারের উৎসব, যেখানে বিধানসভা ভোট আসছে। এবং দুর্গাপুজোয় মেতে ওঠে পশ্চিমবঙ্গ, যেখানে আগামী বছর ভোট। করোনাকালে এই সাহায্য থেকে নিঃসন্দেহে গরিবরা উপকৃত হবেন। সেই সঙ্গে বিধানসভা ভোটে বিজেপির জেতার সম্ভাবনাও বেড়ে যাবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

কিছু বিশেষজ্ঞর মতে, ২০১৩ সালের খাদ্য সুরক্ষা আইন অনুসারে দুই টাকায় গম বা তিন টাকা কেজি দরে চাল দেওয়াটা কেন্দ্রীয় সরকারের দায়িত্ব। মোদী সেখানে বিনা পয়সায় খাদ্যশষ্য দিচ্ছেন।

ভিডিও দেখুন 03:13

গৃহহীনদের বিনামূল্যে খাবার দিচ্ছে এক রেস্তোরাঁ

প্রধানমন্ত্রী আরেকটি বিষয় নিয়ে সাবধান করে দিয়েছেন। মোদী বলেছেন, ''লকডাউনের পর আনলক শুরু হয়েছে। বুধবার থেকে শুরু হবে আনলক ২। এই সময়ে দেখা যাচ্ছে, অনেকে বেপরোয়া হয়ে যাচ্ছেন। মনে রাখবেন প্রত্যেককে মাস্ক, গামছা বাচ্চাদের মুখে রাখতে হবে, দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, হাত ধুতে হবে।'' তাঁর কথায়, ''একটি দেশের প্রধানমন্ত্রী মাস্ক পরেননি বলে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা হয়েছে। এখানেও গ্রামপ্রধান থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত আইনের চোখে সকলে এক। কেউ নিয়ম ভাঙলে যেন শাস্তি দেওয়া হয়।''

মোদী নাম নেননি, তবে বুলগেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী সম্প্রতি মাস্ক ছাড়া একটি চার্চে গিয়েছিলেন বলে তাঁর জরিমানা হয়েছিল।

জিএইচ/এসজি(পিটিআই, এএনআই)

বিজ্ঞাপন