‘খুনী রোবট’ নিষিদ্ধের দাবি | বিশ্ব | DW | 11.08.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র

‘খুনী রোবট’ নিষিদ্ধের দাবি

জলবায়ু পরিবর্তন যেমন বড় শঙ্কা হয়ে উঠেছে, ভবিষ্যতে ‘খুনী রোবট’ও সেরকম হয়ে উঠতে পারে৷ এমন শঙ্কা থেকে স্বয়ংক্রিয় সব অস্ত্র নিষিদ্ধের জন্য চুক্তি স্বাক্ষরের আহ্বান জানিয়েছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডাব্লিউ)৷

স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র নিয়ে এইচআরডাব্লিউ-র উদ্বেগটা নতুন নয়৷ ২০১৩ সালের হিউম্যান রাইটস কাউন্সিলেও বিষয়টি আলোচনায় ছিল৷ কিন্তু তখন স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র মানুষের অস্তিত্ব সংকটে ফেলে দিতে পারে- এ কথা বলে এবং এমন অস্ত্র নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব রেখে নিউইয়র্কভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থাটি খুব বেশি সাড়া পায়নি৷ তবে গত সাত বছরে অন্য ১৬০টি এনজিওকে সঙ্গে নিয়ে বিষয়টির পক্ষে প্রচার চালানোয় সময়কে অনেক অনুকুলে নিয়ে আসতে পেরেছে এইচআরডাব্লিউ৷ সোমবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে তা-ই দাবি করা হয়েছে৷

‘স্টপিং কিলার রোবটস : কান্ট্রি পজিশন্স অন ব্যানিং ফুললি অটোনমাস উইপন্স অ্যান্ড রিটেইনিং হিউম্যান কন্ট্রোল’- শিরোনামের প্রতিবেদনটিতে এইচআরডাব্লিউ জানিয়েছে, মানবজাতিকে ‘খুনী রোবটের’ হাত থেকে বাঁচানো যে খুব দরকার তা এখন অনেক দেশই বুঝতে শুরু করেছে৷ ইতিমধ্যে ৩০টি দেশ ‘খুনী রোবট’, অর্থাৎ স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র নিষিদ্ধের ইচ্ছা প্রকাশ করেছে বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে৷ আলজেরিয়া, আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, বলিভিয়া, ব্রাজিল, চিলি, চীন, কলম্বিয়া, কোস্টারিকা, কিউবা, জিবুতি, ইকুয়েডর, এল সালভাদর, মিশর, ঘানা, গুয়াতেমালা, ইরাক, জর্ডান, মেক্সিকো, মরক্কো, নামিবিয়া, নিকারাগুয়া, পাকিস্তান, পানামা, পেরু, ফিলিস্তিন, উগান্ডা, ভেনিজুয়েলা এবং জিম্বাবোয়ে আছে আগ্রহী দেশগুলোর তালিকায়৷

এইচআরডাব্লিউ মনে করে, এখন নিষিদ্ধের পক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর করা উচিত৷ সোমবার এক বিবৃতিতে সংস্থাাটির ‘স্টপ কিলার রোবটস অ্যান্ড আর্মস ডিভিশন অ্যাডভোকেসি'র সমন্বয়ক মেরি ওয়্যারহাম বলেছেন, ‘‘স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র যেমন ভয়ঙ্কর চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠছে সেরকম চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার উপযুক্ত উপায় একটাই আর তা হলো একটি আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা চুক্তি (স্বাক্ষর)৷’’

ধারবি ভেদ/এসিবি

গত ডিসেম্বরের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন