খাশগজি হত্যাকাণ্ডে সৌদি কর্মকর্তাদের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ মিলেছে | বিশ্ব | DW | 08.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সাংবাদিক হত্যা

খাশগজি হত্যাকাণ্ডে সৌদি কর্মকর্তাদের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ মিলেছে

জাতিসংঘ জানিয়েছে, সাংবাদিক জামাল খাশগজিকে সৌদি আরবের কর্মকর্তারাই যে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছেন, তার প্রমাণ পাওয়া গেছে৷ সৌদি আরব তদন্ত বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগও উঠেছে৷  

জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক তদন্তকারী অ্যাগনিস ক্যালামা বলেছেন, ‘‘খাশগজি হত্যার ঘটনায় তুরস্কের তদন্তকে বারবার প্রভাবিত ও বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছে সৌদি আরব৷ এমনকি ঘটনাস্থলে তুরস্কের কর্তৃপক্ষকে প্রবেশের অনুমতি দিতেও ১৩ দিন সময় নেয় সৌদি কনসুলেট কর্মকর্তারা৷ এ সময় তারা প্রমাণ সরিয়ে ফেলার কাজে ব্যস্ত ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে৷''

গত অক্টোবরে তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয় জামাল খাশগজিকে৷ এই ঘটনার তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে অ্যাগনেস ক্যালামার নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল ২৮ জানুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ইস্তানবুল সফর করে৷

সফর শেষে জেনেভায় এক বিবৃতিতে সৌদি আরবের ভূমিকার সমালোচনা করেন ক্যালামা৷ তিনি বলেন, ‘‘খাশগজি হত্যার ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত৷ এতে সৌদি কর্মকর্তাদের প্রত্যক্ষ সংযোগ রয়েছে৷’’

ক্যালামা আরো বলেন, খাশগজিকে জোর করে সৌদি আরব নিয়ে যাওয়ার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে তাঁকে হত্যা করা হয় কিনা সে বিষয়টি স্পষ্ট নয়৷ তিনি আরো বলেন, সৌদি কনসুলেট কর্মকর্তারা সব প্রমাণ সরিয়ে ফেলায় ফরেনসিক তদন্তকারীরা অকাট্য প্রমাণ সংগ্রহে ব্যর্থ হয়েছে৷

উল্লেখ্য, ওয়াশিংটন পোস্টের কলাম লেখক খাশগজি সৌদি সরকারের সমালোচক ছিলেন৷ যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নেয়া এই সাংবাদিক গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের কনসুলেটে গিয়েছিলেন বিয়ের জন্য কাগজপত্র সংগ্রহ করতে৷ সেখানেই তিনি নিহত হন৷

এফএ/এসিবি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন