‘খালেদা-তারেক ছাড়া সবাই এখন আওয়ামী লীগে’ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 16.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘খালেদা-তারেক ছাড়া সবাই এখন আওয়ামী লীগে’

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ছাড়া দেশের সবাই এখন আওয়ামী লীগে বলে মনে করেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা-৬ আসনের সাংসদ কাজী ফিরোজ রশিদ৷

‘‘দেশের বর্তমান যে অবস্থা, সেখানে আমাদের কথা বলার কিছু নেই৷  আমরা মনে করি, এই দেশে এখন বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ছাড়া আর কেউ আওমী লীগের বাইরে নেই৷ বাংলাদেশের ১৭ কোটি মানুষ এখন... সব প্রো-আওয়ামী লীগার হয়ে গেছি৷''

দেশের সবাই আওয়ামী লীগে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘ধরে নেওয়া যায় যে, আমরা আওয়ামী লীগের সাথে না থাকলেও আওয়ামী লীগ যে কাজকর্ম করতেছে আমরা তাতে সন্তুষ্ট আছি, অসুবিধা কোথায়৷’’ 

ইউটিউবে ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়' টকশো-তে এমন মন্তব্য করেন এ সাংসদ৷ আলোচনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স৷

ভিন্নমত দমনে সরকার মামলা-মোকদ্দমাকে ব্যবহার করে কিনা এমন প্রশ্ন নিয়েও আলোচনা হয় অনুষ্ঠানে৷

সাংসদ ফিরোজ রশিদের ‘খালেদা-তারেক ছাড়া সবাই এখন আওয়ামী লীগে' মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, বিএনপির কেউ আওয়ামী লীগের ভিতরে নয়৷ বিএনপি পুরোপুরি ঐক্যবদ্ধ দাবি করে তিনি বলেন ‘‘এই সরকার দেশের গণতন্ত্র ধংস করে দিয়েছে, দেশের মানুষের অধিকার হরণ করে নিয়েছে, ভোটের অধিকার হরণ করে নিয়েছে৷ এইসব হরণ করে তারা দমন-নিপীড়ন চালিয়েছে৷ লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মীকে  মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করে তারা দেশকে কর্তৃত্ববাদী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে৷’’

বিএনপি সাংগঠনিকভাবে সক্ষম নয়- এমন মত দিয়ে ফিরোজ রশিদ আরো বলেন, বিএনপি মিছিল করে খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে এসেছে৷

কাজী ফিরোজ রশিদের মতে, দমনপীড়ন করে কোনো দলকে দমিয়ে রাখা যায় না৷ খালেদা জিয়াকে মিছিল করে কারাগারে রেখে এসে তারা কী করলো, এমন প্রশ্ন তুলে ফিরোজ রশিদ বলেন, ‘‘আমরা মনে করেছিলাম তার পরের দিন বিএনপি এই দেশে বিশাল আন্দোলন, বিপ্লব, সংগ্রাম করবে৷''

তাদের প্রয়াত নেতা হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ জেলে যাওয়ার পর জাতীয় পার্টি এক দিনের জন্যও থেমে থাকেনি বলেও দাবি করেন কাজী ফিরোজ রশিদ৷

অন্যদিকে সরকার বিএনপিকে ধংস করার চেষ্টা করছে দাবি করে এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, বিএনপি ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর উদারতা দেখিয়েছ৷ কিন্তু সরকার এ উদারতাকে দুর্বলতা হিসেবে নিয়েছে৷

বিএনপি ক্রমান্বয়ে অন্য দলের উপর নির্ভরশীল হয়ে উঠছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে তার দলে প্রতিনিয়তই আলোচনা হচ্ছে এবং বিভিন্ন ইস্যুতে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করছে৷

উল্লেখ্য, ‘ভিন্নমত দমনে সরকার কি মামলা-মোকদ্দমাকে ব্যবহার করে?' এমন প্রশ্ন রেখে ইউটিউবে একটি জরিপ পরিচালনা করে ডয়চে ভেলে৷ জরিপে অংশগ্রহণকারীদের শতকরা ৯৪ ভাগ ভিন্নমত দমনে সরকার মামলা-মোকদ্দমাকে ব্যবহার করে বলে মত দেন৷ জরিপটিতে মোট অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা ছিল ৭৯ হাজার৷

আরআর/এসিবি

সংশ্লিষ্ট বিষয়