খালেদা, তারেকের নেতৃত্বের পথও আপাতত বন্ধ | বিশ্ব | DW | 31.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

খালেদা, তারেকের নেতৃত্বের পথও আপাতত বন্ধ

খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের দলীয় নেতৃত্বে থাকার পথও আপাতত বন্ধ৷ গঠনতন্ত্রে সংশোধনী এনে দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত ব্যক্তিকে নেতৃত্বে রাখার ব্যবস্থা করেছিল বিএনপি৷ ওই আবেদন এক মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট৷

দুর্নীতির দু'টি মামলায় দশ এবং সাত বছরের কারাদণ্ড হয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার৷ গত আট মাস ধরে তিনি কারাবন্দি৷ তাঁর বড় ছেলে তারেক রহমানেরও দুর্নীতির দু'টি মামলায় সাত ও দশ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে৷ এছাড়া ২১শে আগস্ট মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে তার৷ এ সব দণ্ডাদেশ মাথায় নিয়ে তিনি যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছেন৷ বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী, ফৌজদারি মামলায় ন্যূনতম দুই বছর কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার অযোগ্য৷ তবে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে এবং উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেওয়া যায়৷ দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির এভাবে নির্বাচনে অংশ নেয়ার নজির আছে বাংলাদেশে৷

বিএনপির গঠনতন্ত্রে ন'মাস আগেও দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত ব্যক্তিদের দলীয় কমিটিতে না রাখার বিধান ছিল৷ কিন্তু এক সংশোধনীর মাধ্যমে তা বাদ দেওয়া হয়৷ মোজাম্মেল হোসেন নামের এক ব্যক্তি বিএনপির গঠনতন্ত্রের ওই সংশোনীকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেছিলেন৷ এক আদেশে ওই আবেদন এক মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বলেছে হাইকোর্ট৷

সেই সঙ্গে ওই আবেদন নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত দলটির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করার জন্যও নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে৷ ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানায়, গঠনতন্ত্র সংশোধনের ওই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে মোজাম্মেল হোসেনের করা রিট আবেদনটির প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন এই আদেশ দিয়েছে৷

এ আদেশের ফলে ন'মাস আগে আনা গঠনতন্ত্রের ওই সংশোধনী আপাতত কার্যকর থাকছে না৷ সুতরাং বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দলীয় নেতৃত্বে রাখা এবং নির্বাচনে তাদের দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার সুযোগ আপাতত থাকছে না৷

এসিবি/ডিজি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন