খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার ‘সুযোগ নেই’ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 09.05.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার ‘সুযোগ নেই’

আইন অনুযায়ী দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার সুযোগ নেই৷ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এমন মতামত পাঠিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক৷

খালেদা জিয়া

সাম্প্রতিক ছবি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠাতে আবেদন করেছিলেন তার পরিবার৷ এ বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের কাছে মতামত জানতে চেয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷ রোববার আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সেই মতামত পাঠিয়েছেন৷

বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, ‘‘খালেদা জিয়ার বিদেশে যাওয়ার আবেদনে অনুমতি দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। আমি এ লিগ্যাল অপিনিয়ন দিয়েছি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছি৷’’

এই বিষয়ে বিস্তারিত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানাবেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি৷ বলেন, ‘‘একবার যখন একটা সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে, ৪০১ ধারায় কার্যক্রম শেষ হয়ে গেছে, সেজন্য এটাকে আরেকবার রিওপেন করার সুযোগ নেই৷ সেক্ষেত্রে বিদেশে যাওয়ার আবেদনে অনুমতি দেওয়ার সুযোগ নেই৷’’

আইনমন্ত্রীর এ মতামত পাওয়ার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘‘খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার অনুমতি চেয়ে তার ভাই শামীম এস্কান্দারের আবেদনটি গ্রহণ করতে পারলাম না৷’’

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এর আগে বলেছিলেন, খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদন সরকার ‘ইতিবাচক দৃষ্টিতেই’ বিবেচনা করছে৷ গত ৫ মে উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশ পাঠানোর অনুমতি চেয়ে তার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার আবেদন করেন৷ পরদিন পাসপোর্ট নবায়নের জন্যও আবেদন করা হয়৷ 

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে ঢাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে  চিকিৎসাধীন রয়েছেন৷ গত বছর পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে দণ্ডের কার্যকারিতা স্থগিত করে তাকে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার৷ শর্ত অনুযায়ী, এই সময়ে খালেদা জিয়াকে ঢাকায় নিজের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে এবং তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না৷

এফএস/এডিকে (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

মার্চের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়