খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে পরিবারের আবেদন | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 06.05.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে পরিবারের আবেদন

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে সরকারের কাছে আবেদন করেছে তার পরিবার ৷

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সাবেক প্রধানমন্ত্রীর ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার এই আবেদন নিয়ে বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ধানমণ্ডির বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করেন ৷

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, "একটা আবেদন পেয়েছি, বিদেশে বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার প্রয়োজন হলে ইতিবাচক দৃষ্টিতে বিবেচনা করা হবে৷'' আবেদনটির বিষয়ে মতামত জানতে দ্রুততার সঙ্গে আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে এবং বৃহস্পতিবারের মধ্যে আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত পাবেন বলে আশা করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর এখন ঢাকার এভার কেয়ার হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন৷

১১ এপ্রিল তার করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়লেও তার লক্ষণ-উপসর্গ ছিল না বলে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল৷ এবং বাড়িতেই চিকিৎসাধীন ছিলেন৷

২৭ এপ্রিল রাতে পরীক্ষার জন্য বসুন্ধরায় এভার কেয়ার হাসপাতালে তাকে সেখানে ভর্তি করা হয়৷ শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় গত সোমবার তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেওয়া হয়৷তার অবস্থা অপরিবর্তিত বলে মঙ্গলবার বিডিনিউজকে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপি নেতা অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন৷ 

বিএনপি নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় এভার কেয়ার হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. শাহবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড সর্বশেষ অবস্থা পর্যালোচনা করে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার সুপারিশ করে৷ এরপরই পরিবারের সদস্যরা একমত হয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে এই বিষয়ে লিখিত আবেদন করেন৷ পরিবারের পক্ষে ভাই শামীম এস্কান্দারের স্বাক্ষরে এই আবেদনটি করা হয়৷ 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিকালে এভার কেয়ার হাসপাতালে যান এবং চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে দলের চেয়ারপারসনের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জানেন৷

পজিটিভলি' দেখছে সরকার

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল সাংবাদিকদের বলেন, খালেদা জিয়ার আবেদনটি তারা ‘পজিটিভলি' দেখছেন৷ তিনি বলেন "প্রধানমন্ত্রী এ সমস্ত বিষয়ে অত্যন্ত উদার এবং আমরা পজিটিভলি দেখার চেষ্টা করব অবশ্যই৷ পজিটিভলি দেখছি বলেই তাকে (খালেদা জিয়া) দণ্ডাদেশ স্থগিত করে চিকিৎসার সুবিধা আমরা করে দিয়েছি যাতে উন্নত চিকিৎসা পায়, তার পছন্দমতো ৷''

খালেদা জিয়াকে তার পরিবার কোন দেশে নিতে চাইছে- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, "আমরা পত্রটা খুব কেয়ারফুলি দেখতে পারিনি ৷ আসার পরই প্রসেস করতে পাঠিয়ে দিয়েছি৷''

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা নেওয়ার প্রয়োজনের বিষয়টি তার ভাইয়ের কাছেই প্রথম জেনেছেন বলে জানান তিনি৷ খালেদা জিয়াকে বিদেশ যেতে হলে আদালতের অনুমতি যেতে হবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এক দিন আগে বলেছিলেন৷

তিনি বুধবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, "দেখুন, এখানে অনেক কিছু জড়িত আছে৷ বিদেশে যেতে হলে আবার কোর্টের কোনো (কিছু) লাগবে কি না? সেটাও তো ব্যাপার আছে৷ সেজন্যই আইনমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে দিয়েছি, তার কমেন্টস আসুক ৷'' বৃহস্পতিবারের মধ্যে আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত পাওয়ার আশা করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷

তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে আইনমন্ত্রীর কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি৷

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়