‘খালেদা ও হাসিনার বিরুদ্ধে দুই তদন্তেই দুদকের সমান ভূমিকা ছিল′ | বিষয় | DW | 25.12.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘খালেদা ও হাসিনার বিরুদ্ধে দুই তদন্তেই দুদকের সমান ভূমিকা ছিল'

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সমান ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান৷

ডয়চে ভেলে বাংলার সাপ্তাহিক ইউটিউব টকশো ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়'-এর এবারের পর্বে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান এবং ক্যানাডার টরন্টোর ‘নতুন দেশ'-এর সম্পাদক শওকত আলী সাগর৷ এবারের প্রশ্ন ছিল, দুর্নীতিরুখতে কি দুদক ব্যর্থ?

এ প্রসঙ্গে আলোচিত হয় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ ও সে বিষয়ে দুদকের ভূমিকা৷ দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘‘শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে যে মামলা দায়ের হয়, তার রায় ঢাকা ল রিপোর্টে বেরিয়েছে৷ একইভাবে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের ভিত্তিতে যে মামলা চলে, তার রায়ও ঢাকা ল রিপোর্টে প্রকাশিত হয়েছে৷ যদি দুটি রায়কে পাশাপাশি রাখা হয়, তাহলে দেখবেন যে দুটি ক্ষেত্রেই দুদকের ভূমিকা সমান ছিল৷ সেখানে আমাদের ভূমিকায় কোনো ফাঁক নেই৷ যদি সেই রায়ে আমাদের ভূমিকায় কোনো ফাঁক দেখাতে পারেন, তাহলে তা দুদক মাথা পেতে গ্রহণ করবে৷ আমরা দুটি ক্ষেত্রেই পয়েন্ট অফ ল, অর্থাৎ আইনের প্রেক্ষিতেই আমরা কনসিস্টেন্টলি আর্গুমেন্ট করেছি৷''

দুদকের সাফল্য-ব্যর্থতা প্রসঙ্গে সাংবাদিক শওকত আলি সাগর বলেন, ‘‘দুদককে আমরা প্রতিপক্ষ মনে করি না৷ তারা দেশের জনগণের আস্থার জায়গা, কারণ, তাদের কাজ দুর্নীতি দমন করা৷ আমরা আশা করি, দেশে দুদক থাকলে সে ব্যবস্থা নেবে, নাগরিকদের মনে আস্থা তৈরি করবে৷ সেটা না করলে তাদের সফলতা নিয়ে আলোচনা করে লাভ নেই৷ দুদক তাদের কাজ দিয়ে সেই আস্থার জায়গাকে প্রকট করে তুলুক৷''

এছাড়া, এবারের পর্বে আলোচিত হয় দুদকের গুরুত্বপূর্ণ কিছু মামলা, দুর্নীতিতে রাজনৈতিক ভূমিকা ও দেশের বাইরে টাকা পাচারের প্রসঙ্গও৷

এসএস/এসিবি

সংশ্লিষ্ট বিষয়