‘কয়লা নগরী’তে জলবায়ু সম্মেলন শুরু | বিশ্ব | DW | 03.12.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

‘কয়লা নগরী’তে জলবায়ু সম্মেলন শুরু

পোল্যান্ডের কাটোভিৎসে শহরে রয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সবচেয়ে বড় কয়লা কোম্পানি৷ আর জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য অন্যতম দায়ী বিভিন্ন কয়লা কোম্পানি৷ সেই কাটোভিৎসেতে সোমবার থেকে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন শুরু হয়েছে৷

‘কনফারেন্স অফ দ্য পার্টিস’ বা কপ নামে পরিচিত জাতিসংঘের এই বার্ষিক আয়োজনের ২৪তম আয়োজন এটি৷ প্রায় দুই সপ্তাহব্যাপী সম্মেলন ১৪ ডিসেম্বর শেষ হওয়ার কথা৷ বাংলাদেশসহ বিশ্বের প্রায় ২০০টি দেশের প্রায় ২৩ হাজার অংশগ্রহণকারী এবার কপ২৪-এ উপস্থিত থাকবেন৷

বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট আব্দুল হামিদের এবার সম্মেলনে অংশ নেয়ার কথা থাকলেও অসুস্থতার কারণে তিনি উপস্থিত থাকতে পারছেন না৷

কপ২৪-এর সভাপতি পোল্যান্ডের পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের স্টেট সেক্রেটারি মিখাল কুরতিকা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন৷ পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেই দুদা, জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসসহ বিশ্বের প্রায় ৩০টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন৷

গুতেরেস বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন থেকে বিশ্ব এখনও ‘অনেক দূরে’ আছে৷ সম্মেলনে উপস্থিত বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘আমরা এখনও যথেষ্ট কাজ করছি না, পর্যাপ্ত গতিতে এগোচ্ছি না৷’’

মূল লক্ষ্য

২০১৫ সালে প্যারিসের জলবায়ু সম্মেলনে স্বাক্ষরিত চুক্তির বাস্তবায়ন ২০২০ সাল থেকে শুরু হওয়ার কথা৷ সেটি কার্যকর করতে একটি ‘রুলবুক’ বা নীতিমালা তৈরিই কপ২৪-এর মূল লক্ষ্য হিসেবে ধরা হয়েছে৷ প্যারিস চুক্তিতে বিশ্বের তাপমাত্রা শিল্পবিপ্লব পূর্ববর্তী সময়ে যা ছিল, তার চেয়ে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি না বাড়তে দেয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে৷

তবে গত অক্টোবরে জাতিসংঘের সংস্থা ‘ইন্টারগভার্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ’ বা আইপিসিসি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে৷ সেখানে বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা দেড় ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার ওপর জোর দেয়া হয়েছে৷ এই লক্ষ্য পূরণ করতে চাইলে ২০৩০ সালের মধ্যে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন ৪৫ শতাংশ কমাতে হবে বলে জানায় বিশ্বের প্রায় ৯০০ বিজ্ঞানীর যৌথভাবে লিখিত আইপিসিসির ঐ প্রতিবেদন৷

কিন্তু সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, চার বছর ধরে কার্বন ডাই-অক্সাইড নির্গমন বৃদ্ধি থেমে থাকলেও আবার তা বাড়তে শুরু করেছে৷

‘জলবায়ু প্রথম, রাজনীতি দ্বিতীয়’

কাটোভিৎসে সম্মেলন শুরুর আগে রবিবার বেলজিয়ামের ব্রাসেলস এবং জার্মানির বার্লিন ও কোলন শহরে বিক্ষোভ হয়েছে৷ ব্রাসেলসের বিক্ষোভে প্রায় ৬৫ হাজার মানুষ অংশ নেন বলে পুলিশ জানিয়েছে৷

কার্বন নির্গমন কমাতে আরো উচ্চাকাঙ্খী লক্ষ্য নির্ধারণ করতে কাটোভিৎসে অংশ নেয়া রাজনীতিবিদ ও নীতি-নির্ধারকদের আহ্বান জানিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা৷

তাঁদের হাতে থাকা ব্যানারে লেখা বিভিন্ন স্লোগানের মধ্যে আছে ‘প্ল্যানেট বি বলে কিছু নেই’, ‘জলবায়ু প্রথম, রাজনীতি দ্বিতীয়’ ইত্যাদি৷

ইয়েন্স থুরাউ/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন