কয়লা আর পারমাণবিক বিদ্যুৎ বন্ধের দাবিতে উত্তাল বন | বিশ্ব | DW | 11.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

কয়লা আর পারমাণবিক বিদ্যুৎ বন্ধের দাবিতে উত্তাল বন

কয়লা, জীবাশ্ম জ্বালানি আর পারমাণবিক বিদ্যুতের বিরুদ্ধে নিজেদের অবস্থানের কথা জার্মানির বন শহরে আরো একবার জানান দিলেন পরিবেশবাদীরা৷ শনিবার ছুটির দিনে একাধিক প্রতিবাদ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে জার্মানির প্রাক্তন রাজধানীতে৷

আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলনে কপ২৩ অনুষ্ঠিত হচ্ছে জার্মানির বন শহরে৷ এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে শনিবার রাজপথ কাঁপিয়ে তোলেন কয়েক হাজার প্রতিবাদকারী৷ জলবায়ু সম্মেলন কেন্দ্রের কাছেই এক প্রতিবাদ কর্মসূচি থেকে কয়লা, জীবাশ্ম জ্বালানি আর পারমাণবিক বিদ্যুৎ বন্ধের দাবি জানিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা৷ প্রতিবাদকারীদের অনেককে দেখা গেছে, জার্মানির কার্নেভাল মৌসুমের পোশাক পরে ব়্যালিতে অংশ নিতে, যাতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর নানা দিক৷

একটি প্রতিবাদ ব়্যালির আয়োজন করে ‘‘নো ক্লাইমেট চেইঞ্জ'' নামের একটি গোষ্ঠী, যেটি বনের কেন্দ্রীয় বাসস্টেশন থেকে শুরু হয়ে জলবায়ু সম্মেলনের ভেন্যু জাতিসংঘ ক্যাম্পাসের কাছে গিয়ে শেষ হয়৷ আরেকটি প্রতিবাদ কর্মসূচি ছিল শুধুমাত্র বনের কেন্দ্রস্থলে৷

প্রসঙ্গত, শনিবার থেকে জার্মানিতে কার্নেভাল মৌসুম শুরু হয়েছে৷ ফলে প্রতিবাদকারীদের অনেককে দেখা গেছে কার্নেভালের সাজে জলবায়ু ব়্যালিতে অংশ নিতে৷ পরিবেশবাদীদের একটি দল জলদস্যুদের একটি প্রতীকী জাহাজ নিয়ে মিছিলে হাজির হয়, যেটি পারমাণবিক বর্জ্য বহন করছে৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনাও দেখা গেছে জলবায়ু পরিবর্তন বিরোধী মিছিলে৷ এতে দেখা যায়, জার্মানির ফল্কসভাগেন গাড়ি চালাচ্ছেন ট্রাম্প আর তাঁকে ঘিরে রেখেছে একদল শ্বেত ভাল্লুক৷ এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে, ফল্কসভাগেন গাড়ি কোম্পানি অতীতে পরিবেশ দূষণ সম্পর্কে ভুল তথ্য দিয়ে সমালোচিত হয়েছে। ওদিকে ট্রাম্প প্যারিসে যে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সমঝোতা হয়েছে সেখান থেকে কিছুদিন আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়েছেন৷

প্রতিবাদ ব়্যালিতে একদল তরুণ হিন্দু দেবী কালী এবং পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর কয়লা ও পারমাণবিক বিদ্যুতের প্রতীক শয়তানের মধ্যে লড়াইয়ের আয়োজন করে৷

শনিবার প্রতিবাদ কর্মসূচির একটিতে পাঁচ হাজারের মতো এবং অন্যটিতে তিন হাজারের মতো প্রতিবাদকারী অংশ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা৷ তবে পুলিশ বলেছে, তারা যত মানুষ এসব প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নেবেন বলে আশা করেছিলেন, তত মানুষ আসলে অংশ নেননি৷

উল্লেখ্য, জার্মানির বন শহরে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সম্মেলন কপ২৩ চলবে ১৭ নভেম্বর অবধি৷ বিশ্বের ১৯৭টি দেশের ২০ হাজারের বেশি প্রতিনিধি এই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন