ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষায় আরও এগিয়ে গেল উত্তর কোরিয়া | বিশ্ব | DW | 03.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

উত্তর কোরিয়া

ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষায় আরও এগিয়ে গেল উত্তর কোরিয়া

রবিবার হাইড্রোজেন বোমার সফল পরীক্ষার দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া৷ বিশ্লেষকরা যেটাকে বলছেন, গত বছরের চেয়ে প্রায় ৯ গুণ শক্তিশালী৷ এই বোমার পরীক্ষার ফলে আবারো কোরীয় উপদ্বীপে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে৷

এই হাইড্রোজেন বোমাটি দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রে জুড়ে দেওয়া যাবে৷ রবিবার উত্তরপূর্ব কিজু এলাকায় ভূকম্পন অনুভূত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে ষষ্ঠ এ পারমাণবিক বোমার পরীক্ষা চালানোর কথা জানানো হয়৷
শক্তিশালী বোমা

গত বছরের সেপ্টেম্বরে চালানো পঞ্চম পারমাণবিক পরীক্ষা থেকে এবারেরটি ৯ দশমিক ৮ গুণ বেশি শক্তিশালী বলে জানিয়েছে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ৷ পিয়ংইয়ং বলছে, তাদের পরীক্ষা চালানো হাইড্রোজেন বোমাটি আনবিক বোমার চেয়েও কয়েকগুণ বেশি শক্তিশালী৷


পিয়ংইয়ং-এর রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ জানিয়েছে, দেশটির নেতা কিম জং উন পারমাণবিক অস্ত্র ইন্সটিটিউটে এ সব অস্ত্র পরিদর্শনে গিয়েছিলেন৷ সেখানে তিনি জানিয়েছেন বোমা তৈরির সব উপকরণের পুরোটাই তাঁর দেশে তৈরি৷

এবারেরটি ৯ দশমিক ৮ গুণ বেশি শক্তিশালী

এবারেরটি ৯ দশমিক ৮ গুণ বেশি শক্তিশালী


পারমাণবিক সক্ষমতা বাড়ছে উত্তর কোরিয়ার

বিশ্লেষকরা বলছেন, উত্তর কোরিয়ার দাবি নিয়ে সন্দেহ থাকলেও দেশটির পারমাণবিক সক্ষমতা যে বাড়ছে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই৷ রবিবার সকালে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ ‘আরও উন্নত প্রযুক্তির হাইড্রোজেন বোমা' তৈরির দাবি করার ঘণ্টাখানেকের মধ্যে পানগেয়ি-রি পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্রের কাছেই ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ভূ-কম্পনের খবর দেয় দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপান৷


চীনের আর্থকোয়েক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনও উত্তর কোরিয়ার ভূমিকম্প ‘বিস্ফোরণের কারণে' সৃষ্ট হয়েছে বলে ধারণা করছে৷ প্রথম কম্পনের পর ৪ দশমিক ৬ মাত্রার 'আফটার শক' অনুভূত হয়৷ প্রাথমিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের ভূ-জরিপ অধিদপ্তর ভূমিকম্পের মাত্রা ৫ দশমিক ৬ মাত্রার বললেও পরে সেটি বাড়িয়ে ৬ দশমিক ৩ মাত্রার করা হয়৷ কম্পনের শক্তির কারণে একে উত্তর কোরিয়ার চালানো সবচেয়ে বড় পরীক্ষা বলেও ধারণা করা হচ্ছে৷

প্রতিক্রিয়া

কম্পনের পরপরই জরুরি বৈঠকে বসে দক্ষিণ কোরিয়ার নিরাপত্তা কাউন্সিল৷ দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইয়োনহ্যাপের উদ্ধৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু পরীক্ষার কেন্দ্রস্থল ও আশেপাশে আজ কৃত্রিম ভূমিকম্প হয়েছে, যা দেশটির ষষ্ঠতম পরমাণু পরীক্ষা বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

জাপানের প্রধানমন্ত্রী এই পরীক্ষার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, পিয়ংইয়ং-এর এই আচরণ ‘পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য'৷ দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘আবহাওয়া সংস্থার দেওয়া তথ্যসহ নানা তথ্য–উপাত্ত পরীক্ষা–নিরীক্ষা করার পর সরকার নিশ্চিত করছে যে উত্তর কোরিয়া পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে৷''
জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই গত বছরের সেপ্টেম্বরে সর্বশেষ পারমাণবিক পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া৷ এরপরও তারা ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন মাত্রার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে আসছে৷ গত সপ্তাহে তাদের ছোড়া হোয়াসং-১২ ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের উপর দিয়ে উড়ে গিয়ে প্রশান্ত মহাসাগরে পড়ে৷
এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন