ক্নুটের অকাল মৃত্যুতে শোকাহত জার্মানি | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.03.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ক্নুটের অকাল মৃত্যুতে শোকাহত জার্মানি

বিদায় নিল জার্মানির জনপ্রিয় তারকা শ্বেত ভল্লুক ক্নুট৷ মাত্র চার বছর তিন মাস বয়সেই মারা গেল বার্লিন চিড়িয়াখানার এই তারকা প্রাণী৷ তার অকাল মৃত্যুতে শোকাহত জার্মানি৷

default

সবার প্রিয় ক্নুট আর নেই

এতো অল্প বয়সে কেন মারা গেল ক্নুট তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি৷ তবে বার্লিন চিড়িয়াখানার ভল্লুকদের দায়িত্বে থাকা হায়নার ক্লোজ জানালেন যে, ক্নুটের মৃত্যুর কারণ জানতে সোমবার তার ময়না তদন্ত করা হবে৷

ক্নুটের মৃত্যুতে শোকাহত স্বয়ং বার্লিনের মেয়র ক্লাউস ভোভেরাইট৷ বললেন, ‘‘এটা খুব বেদনাদায়ক৷ সে আমাদের সবার হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছিল৷ সে ছিল বার্লিন চিড়িয়াখানার তারকা৷''

Deutschland Berlin Zoo Eisbärenbaby Knut

বার্লিন চিড়িয়াখানা ছিল ক্নুটের ঘরবাড়ি

২০০৬ সালের ৫ ডিসেম্বর জন্ম ক্নুটের৷ কিন্তু জন্মের পরই ২০ বছর বয়সি মা টসকা ক্নুটকে ও তার জমজ ভাইকে ছেড়ে চলে যায়৷ ফলে ক্নুটের ভাইটি মারা যায়৷ ৩০ বছরের মধ্যে প্রথম বার্লিন চিড়িয়াখানায় জন্ম নেওয়া এই ক্নুটের দেখাশোনার দায়িত্ব নেয় কর্তৃপক্ষ৷ মানবশিশুর মতো আদর যত্নে তাকে বড় করা হয়৷

এরপর ২০০৭ সালের ২ মার্চ বেশ কিছু টেলিভিশনে অভিষেক হয় ক্নুটের৷ সেই থেকে ধীরে ধীরে তারকা বনে যায় এই শ্বেত ভল্লুক ছানা৷ ঐ বছর ২৩ মার্চ প্রায় ৫০০ সাংবাদিক ভিড় করেন ক্নুটের প্রথম প্রদর্শনীর দিনে ছবি ধারণ করতে৷ এমনকি জার্মান পরিবেশ মন্ত্রী জিগমার গাব্রিয়েল নিজেও হাজির ছিলেন সেদিন৷ প্রথম দিনেই ক্নুটকে দেখতে আসে প্রায় ১৫ হাজার দর্শক৷ শুধু তাই নয় ‘ক্নুট এবং তার বন্ধুরা' এই নামে ছবি তৈরি করা হয়৷ সেই থেকে একেবারে চলচ্চিত্র তারকা বনে যায় ক্নুট৷ কিন্তু তারকা অক্টোপাস পলের পথ ধরে এবার ক্নুটও বিদায় নিল৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

বিজ্ঞাপন