কুয়েত এয়ারওয়েজের টিকিট পাবে না ইসরায়েলিরা? | বিশ্ব | DW | 17.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মধ্যপ্রাচ্য

কুয়েত এয়ারওয়েজের টিকিট পাবে না ইসরায়েলিরা?

কুয়েত এয়ারওয়েজ এক ইসরায়েলি যাত্রীকে তাঁর নাগরিকত্বের জন্য বিমানের টিকিট দেয়নি৷ অথচ তাতে কোনো আইন ভঙ্গ হয়নি বলে জানিয়েছে ফ্রাংকফুর্টের আদালত৷ বিষয়টি নিয়ে অবশ্য বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে ঠিকই৷

জার্মানির ফ্রাংকফুর্ট শহরের একটি আদালত বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, ইসরায়েলি নাগরিকদের শুধুমাত্র তাঁদের নাগরিকত্বের জন্য বিমানে বহন না করার আইনি অধিকার রয়েছে কুয়েত এয়ারওয়েজের৷ আদালতের রায়ে উল্লেখ করা হয়, একজন ব্যক্তিকে বহন করায় যদি কুয়েতের বেশ কয়েকজন মানুষকে ভয়াবহ আইনি পরিনতির শিকার হতে হয়, তাহলে তা করা যুক্তিসঙ্গত নয়৷

কুয়েতের আইন অনুযায়ী, কুয়েতি কোনো কোম্পানিইসরায়েলের সঙ্গে কোনোরকম ব্যবসা করতে পারবে না৷ অর্থাৎ সেই আইন অনুযায়ী, ইসরায়েলি কোনো নাগরিককে বিমান টিকিটও দিতে পারবে না কুয়েত এয়ারওয়েজ৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে কুয়েত এয়ারওয়েজে ফ্রাংকফুর্ট থেকে কুয়েত সিটি হয়ে ব্যাংককে যেতে চেয়েছিলেন এক ইসরায়েলি৷ কিন্তু বিমান কোম্পানি তাঁকে টিকিট দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে আদালতে মামলা করেন তিনি৷

ফ্রাংকফুর্ট ছাড়াও সুইজারল্যান্ড এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও একইধরনের মামলার শিকার হয়েছে কুয়েত এয়ারওয়েজ৷ সেসব দেশের আদালত অবশ্য বিমান সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটির বিপক্ষে রায় দিয়েছে৷

জার্মানির আদালতের রায় পক্ষে গেলেও ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছে কুয়েত এয়ারওয়েজ৷ ফ্রাংকফুর্টের মেয়র উয়ে বেকার এ বিষয়ে বলেন, ‘‘আমার মতে, একটি এয়ারলাইন, যারা কিনা ইসরায়েলের যাত্রী বহন না করে বৈষম্য এবং ইহুদিবিদ্বেষ চর্চা করছে, তাদের ফ্রাংকফুর্টে উড্ডয়ন বা অবতরণের অনুমতি দেয়া উচিত নয়৷''

মামলা ঠুকে দেয়া ইসরায়েলির আইনজীবী নাথান গেলবার্টও আদালতের রায়ের সমালোচনা করে বলেছেন, ‘‘এটি গণতন্ত্র এবং সামগ্রিকভাবে জার্মানির জন্য একটি লজ্জাজনক রায়৷''

এআই/ডিজি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়