কুয়েতের শাসক প্রয়াত | বিশ্ব | DW | 30.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

কুয়েতের শাসক প্রয়াত

কুয়েতের শাসক আমির শেখ সাবহ প্রয়াত। গত জুলাই থেকে তিনি অ্যামেরিকায় চিকিৎসাধীন ছিলেন। 

কুয়েতের শাসক আমির শেখ সাবাহ ৯১ বছর বয়সে মারা গেলেন। তিনি আগেই তাঁর ভাই শেখ নওয়াফ আল আহমেদ আল সাবাহ-কে ভাবী শাসক হিসাবে চিহ্নিত করে গিয়েছেন। ২০০৬ থেকে তিনি কুয়েতশাসন করছেন। তবে তার আগে দীর্ঘ চার দশক ধরে তিনি কুয়েতের বিদেশনীতি পরিচালনা করেছেন।

কুয়েতের রাজপরিবার সংক্রান্ত মন্ত্রী টেলিভিশন সম্প্রচারে বলেছেন, ''গভীর দুঃখের সঙ্গে আমরা কুয়েতের আমির শেখ সবাহ আল-আহমেদ আল-জাবের আল-সবাহের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি। ''গত জুলাই থেকে তিনি অ্যামেরিকার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার আগে কুয়েতে তাঁর অস্ত্রোপচার হয়েছিল। 

কুয়েতের বিদেশমন্ত্রী থাকার সময় তাঁর ভূমিকার জন্য তিনি দীর্ঘদিন ধরে প্রশংসিত। তিনি কাতারের সঙ্গেও বিরোধ মেটানোর চেষ্টা করেছেন। তবে সেই অভিজ্ঞতা তাঁর কাছে 'তিক্ত' ছিল। ইয়েমেনের বিরুদ্ধে সৌদির নেতৃত্বে সামরিক প্রচার তিনি মেনে নিতে পারেননি। আর সবসময়ই তিনি ফিলিস্তিনিদের অধিকার রক্ষা নিয়ে কড়া মনোভাব দেখিয়েছেন।

১৯৬৩ সালে তিনি কুয়েতের বিদেশমন্ত্রী হন। তিনিই ছিলেন বিশ্বের সব চেয়ে বেশি সময় ধরে থাকা বিদেশমন্ত্রী। তাঁর পূর্বসূরি শেখ সাদ আল-আবদুল্লাহ আল-সাবাহ মাত্র নয় দিন শাসন করতে পেরেছিলেন। কুয়েতের পার্লামেন্টে তাঁকে সরিয়ে দেয়ার সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তারপরই আমির শেখের শাসন শুরু হয়। তিনি সবসময় আধুনিকীকরণকে গুরুত্ব দিয়েছেন।

জিএইচ/এসজি(রয়টার্স, এপি, ডিপিএ)

বিজ্ঞাপন