কিছুদিন শান্ত থাকার পর আবার ‘দুরন্ত′ উত্তর কোরিয়া | বিশ্ব | DW | 29.08.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

উত্তর কোরিয়া

কিছুদিন শান্ত থাকার পর আবার ‘দুরন্ত' উত্তর কোরিয়া

মঙ্গলবার সকালে উত্তর কোরিয়া একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে৷ জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের উপর দিয়ে উড়ে সেটি সমুদ্রে আছড়ে পড়েছে৷ এমন প্ররোচনার মুখে তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়ছে জাপান৷

দক্ষিণ কোরিয়ার এক সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ং ইয়ং-এর কাছ থাকে ক্ষেপণাস্ত্রটি নিক্ষেপ করা হয়৷ ৫৫০ কিলোমিটার সর্বোচ্চ উচ্চতায় প্রায় ২,৭০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেছে ‘হোয়াংসং ১২'৷ হোক্কাইডো দ্বীপের কেপ এরিমো-র উপর দিয়ে সেটি উড়ে যায়৷

সে সময়ে জাপানের উত্তরে মানুষকে সতর্ক করতে সাইরেন বাজানো হয়েছিল৷ বেশ কিছু সময়ের জন্য রেল যোগাযোগ বন্ধ রাখা হয়েছিল৷ জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, ক্ষেপণাস্ত্রটির জাপানে আঘাত করার কোনো আশঙ্কা না থাকায় সেটিকে থামানোর কোনো চেষ্টা করা হয়নি৷ উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে শেষবার উত্তর কোরিয়ার কোনো ক্ষেপণাস্ত্র জাপান অতিক্রম করেছিল৷ সেই রকেট একটি যোগাযোগের স্যাটেলাইট কক্ষপথে নিয়ে যাচ্ছিল বলে সে দেশ দাবি করে৷

মঙ্গলবার জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে সাংবাদিকদের বলেন, এই পদক্ষেপ জাপানের জন্য অভূতপূর্ব ও কঠিন হুমকি৷ তিনি জানান, উত্তর কোরিয়ার কাছে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়েছে৷ জাপানের জনগণের নিরাপত্তার জন্য সরকার সব পদক্ষেপ নেবে বলে আশ্বস্ত করেন আবে৷

তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন৷ দুই নেতাই উত্তর কোরিয়ার উপর আরও চাপ সৃষ্টি করার বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছেছেন৷ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে জাতিসংঘে জরুরি বৈঠক ডেকেছে জাপান৷ নিরাপত্তা পরিষদ সম্ভবত মঙ্গলবারই এ বিষয়ে আলোচনা করবে৷

গত কয়েক দিনে গোটা অঞ্চলে সামরিক তৎপরতা বেড়ে গেছে৷ দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী ১১ দিন ধরে যৌথ মহড়া চালিয়েছে৷ এর আওতায় দক্ষিণ কোরিয়াও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল৷ উত্তর কোরিয়া এই পদক্ষেপের কড়া সমালোচনা করে প্রতিশোধের হুমকি দিয়েছিল৷ শনিবারই সে দেশ জাপান সাগরে তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে৷

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন গত সপ্তাহে উত্তর কোরিয়ার প্রতি বেশ নরম মনোভাব দেখিয়েছিলেন৷ জুলাই মাসের পর থেকে কোনো সামরিক পরীক্ষা না চালিয়ে সে দেশ যে সংযম দেখিয়েছে, পরোক্ষভাবে তার প্রশংসা করেছিলেন তিনি৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন