কাশ্মীরে গাড়িবোমা হামলা, ভারত-পাকিস্তান দ্বন্দ্ব ফের তুঙ্গে | বিশ্ব | DW | 15.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত-পাকিস্তান

কাশ্মীরে গাড়িবোমা হামলা, ভারত-পাকিস্তান দ্বন্দ্ব ফের তুঙ্গে

ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গিদের বোমা হামলায় অন্তত ৪০ জন ভারতীয় আধাসামরিক সেনা নিহত হয়েছে৷ এ ঘটনায় পাকিস্তানকে একঘরে করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ভারত৷

বৃহস্পতিবার বিকালে জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ)-এর গাড়িবহরে এ হামলার ঘটনা ঘটে৷ জঙ্গি সংগঠন জৈশ-ই-মোহাম্মদ হামলার দায় স্বীকার করেছে৷

ভারতীয় গোয়েন্দা বিভাগ মনে করে, এই হামলার মূল পরিকল্পনাকারী সাবেক আফগান যোদ্ধা আব্দুল রশিদ গাজী৷ সাবেক এই আফগান যোদ্ধা ও  বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ৷ তিনিই পুলওয়ামা হামলার সম্পূর্ণ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন বলে দাবি করেছেন ভারতীয় গোয়েন্দারা৷ ভারতীয় গোয়েন্দা বিভাগ আরো জানায়, গত বছরের ডিসেম্বর থেকে এই হামলার ছক তৈরি করা শুরু হয়েছিল৷

কাশ্মীরে দুই দশকের মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর এটিই সবচেয়ে প্রাণঘাতী হামলা৷ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘এ হামলার পেছনে জড়িতদের চরম মূল্য দিতে হবে৷’’

যুক্তরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক বহু সংগঠন এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জঙ্গিবাদবিরোধী লড়াইয়ে ভারত সরকারের পাশে থাকতে যুক্তরাষ্ট্র দৃঢ়ভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ৷ জঙ্গিদের আশ্রয় ও সমর্থন না দিতে বিশ্বের দেশগুলোর প্রতিও আহ্বান জানানো হয়েছে সেই বিবৃতিতে৷

এদিকে গাড়িবোমা হামলার ঘটনায় পাকিস্তানকে দায়ী করে দেশটিকে একঘরে করে ফেলার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ভারত৷ ভারতের অর্থমন্ত্রী অরুন জেটলি বলেছেন, তাঁর দেশ পাকিস্তানকে একঘরে করতে কূটনীতিকভাবে যা যা করা দরকার তার সবই করবে৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনে উচ্চপর্যায়ের এক বৈঠকের পর এ কথা বলেন জেটলি৷ তিনি আরো বলেন, ‘‘অচিরেই পাকিস্তানকে ভারতের দেওয়া ‘মোস্ট ফেভারড নেশন’-এর খেতাব প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে৷

অন্যদিকে ইসলামাবাদ কাশ্মীরে হামলার তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে এবং হামলা নিয়ে তাদের ওপর আসা সব ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে উরির সেনা ছাউনিতে জঙ্গি হামলায় নিহত হয়েছিল ১৯ সেনাকর্মী৷ এবারের এ হামলা উরির ভয়াবহতাকেও ছাপিয়ে গেছে৷ বাসে থাকা সেনাদের অনেকে গুরুতর আহত হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

এফএ/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি, এপি)

২০১৭ সালের মে মাসের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন