কাল থেকে পাবনায় সুচিত্রা সেন চলচ্চিত্র উৎসব | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 25.11.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

কাল থেকে পাবনায় সুচিত্রা সেন চলচ্চিত্র উৎসব

সুচিত্রা সেন, বাংলা চলচ্চিত্রের জীবন্ত কিংবদন্তী৷ সুচিত্রা এবং সুচিত্রা-উত্তম জুটির ছবি এখনও বাঙালিকে মন্ত্রমুগ্ধের মত টানে৷ সুচিত্রার জন্ম বাংলাদেশের পাবনায়৷ সেখানেই শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে সুচিত্রা সেন চলচ্চিত্র উৎসব৷

default

২৬ নভেম্বর থেকে আট দিনব্যাপী এই চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করেছে সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদ বা এসএসএসএসপি৷ ইন্দো-এশিয়ান নিউজ সার্ভিসের খবরে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের চলচ্চিত্র অর্থাৎ ঢালিউডের সিনিয়র অভিনেতা রাজ্জাক এই উৎসবের উদ্বোধন করবেন৷ আর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন চলচ্চিত্র পরিচালক ও অভিনেতা আমজাদ হোসেন৷ এই আয়োজনে আরো উপস্থিত থাকবেন, শিল্পী সোহেল রানা, উজ্জ্বল, দিতিসহ আরো অনেকে৷

এসএসএসএসপি-র মোহাম্মদ সাদিকুল হক বলেছেন, দ্বিতীয়বারের মতো এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘সুচিত্রা সেনের ছবি দর্শকরা খুবই পছন্দ করেন৷ এই কারণে তিনি রুপালি পর্দার কিংবদন্তীতে পরিণত হয়েছেন৷ গতবারের উৎসবে দর্শকদের অভাবনীয় সাড়া পাওয়ায় দ্বিতীয়বারের মতো উৎসবের পরিকল্পনা করেছি আমরা৷''এদিকে উৎসব আয়োজন কমিটির সেক্রেটারি রাম দুলাল ভৌমিক বলেছেন, উৎসবের একটি দিন রাখা হয়েছে শুধুমাত্র মহিলা দর্শকদের জন্যে৷

সুচিত্রা সেন চলচ্চিত্র উৎসবে যে ছবিগুলো প্রদর্শিত হবে তার মধ্যে রয়েছে, পথে হলো দেরি, ইন্দ্রানি, বিপাশা, কোমল-লতা, সূর্য তোরণ, দেবদাস, রাজলক্ষ্মী-শ্রীকান্ত এবং আলো আমার আলো৷

১৯৩১ সালে পাবনা শহরে জন্মগ্রহণ করেন সুচিত্রা সেন৷ এই শহরেই লেখাপড়া করেছেন এবং বড় হয়েছেন তিনি৷ তাঁর বাবা করুণাময় দাসগুপ্ত স্থানীয় একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন৷ ১৯৪৭ সালে দিবানাথ সেনকে বিয়ে করেন সুচিত্রা৷ তাঁর একমাত্র কন্যা মুনমুন সেন এবং দুই নাতনি রাইমা ও রিয়া সেনও ভারতীয় চলচ্চিত্রের পরিচিত মুখ৷

প্রতিবেদক: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

বিজ্ঞাপন