কার্বন নির্গমন কমাতে লক্ষ্যমাত্রা স্থির করলো ইইউ | বিশ্ব | DW | 10.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইইউ

কার্বন নির্গমন কমাতে লক্ষ্যমাত্রা স্থির করলো ইইউ

জাতিসংঘের জলবায়ু সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশিত হবার পর ইইউ পরিবেশমন্ত্রীরা নির্গমন কমানোর নতুন লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করলেন৷ তবে জার্মানির সরকার এ ক্ষেত্রে ঢিলেঢালা মনোভাবের জন্য দেশে-বিদেশে সমালোচনার মুখে পড়ছে৷

জার্মানির এক নামি সংবাদ ওয়েবসাইটের সাম্প্রতিক শিরোনাম ছিল ‘জার্মানির সরকার জলবায়ু নয়, বরং ডিজেল বাঁচাতে ব্যস্ত'৷ গাড়ি ও জ্বালানি শিল্পের প্রতি মাত্রাতিরিক্ত দরদ দেখিয়ে সরকার যেভাবে কার্বন নির্গমনের মাত্রা কমানোর ক্ষেত্রে ঢিলেঢালা মনোভাব দেখিয়ে চলেছে, তার মোকাবিলা করতে একের পর এক আদালত বিভিন্ন শহরে ডিজেল গাড়ি প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞার রায় দিয়ে চলেছে৷ মঙ্গলবার খোদ রাজধানী বার্লিনেও এমন নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা করেছে আদালত৷

অন্যদিকে গাড়ি কোম্পানিগুলি অসৎ উপায়ে ডিজেল গাড়ির সফটওয়্যারে নির্গমনের মাত্রায় কারচুপি ঘটিয়েও কোনো শাস্তির মুখে পড়ছে না৷ শিল্পের স্বার্থ, বেকারত্ব ও কর্মসংস্থানের অজুহাত দেখিয়ে জার্মানির সরকার তাদের উপর কোনো ‘বোঝা' চাপাতে নারাজ৷

এমনই প্রেক্ষাপটে লুক্সেমবুর্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পরিবেশমন্ত্রীরা প্রায় ১৩ ঘণ্টা ধরে তর্ক-বিতর্কের পর মঙ্গলবার গভীর রাতে নির্গমনের মাত্রা কমাতে এক লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছেন৷ এর আওতায় আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে গাড়ির নির্গমনের মাত্রা ৩৫ শতাংশ কমানো হবে৷ ইউরোপের গাড়ি শিল্পকে এই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে৷ ২০টি সদস্য দেশ এই সিদ্ধান্তের পক্ষে, ৪টি বিপক্ষে ভোট দিয়েছিল৷ ৪টি দেশ ভোটদানে বিরত ছিল৷ বুধবার ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ও ইউরোপীয় কমিশনের সঙ্গে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করার বিষয়ে আলোচনা শুরু হচ্ছে৷

পার্লামেন্ট আরো কড়া লক্ষ্যমাত্রা স্থির করার পক্ষে থাকলেও কমিশন বরং সেই মাত্রা কমানোর চেষ্টা করেছিল৷ জার্মানিও কমিশনের সঙ্গে সুর মিলিয়ে ৩০ শতাংশ নির্গমন কমানোর চেষ্টা করেছিল৷ পূর্ব ইউরোপের কিছু দেশও এমন নিম্ন লক্ষ্যমাত্রার পক্ষে৷ অন্যদিকে ইইউ জ্বালানি কমিশনার ও ১৫টি সদস্য দেশের পরিবেশমন্ত্রীরা নির্গমনের মাত্রা ৪৫ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন৷

জাতিসংঘের জলবায়ু সংক্রান্ত সাম্প্রতিক রিপোর্ট প্রকাশিত হবার পর পরিবেশ সংরক্ষণের বিষয়টি বাড়তি গুরুত্ব পাচ্ছে৷ ইইউ পরিবেশমন্ত্রীরা এমন ভয়াবহ চিত্র সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন৷ তাছাড়া চলতি বছর গ্রীষ্মকালে উত্তর গোলার্ধে মারাত্মক উত্তাপও তাঁদের এমন কড়া অবস্থান নিতে বাধ্য করছে৷ কার্বন নির্গমনের লক্ষ্যমাত্রার পাশাপাশি তাঁরা ইলেকট্রিক গাড়ির বিক্রি বাড়ানোর লক্ষ্যে গাড়ি শিল্পকে উৎসাহ দিতে এক ‘ক্রেডিটিং সিস্টেম' চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷

আগামী ডিসেম্বর মাসে পোল্যান্ডে জাতিসংঘের উদ্যোগে জলবায়ু সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে৷ তার আগেই ইইউ এমন স্পষ্ট সিদ্ধান্ত নিয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে চায়৷ এমনকি জাতীয় স্তরে এ ক্ষেত্রে অবদানের লক্ষ্যমাত্রা আরো বাড়ানোর উদ্যোগ চলছে৷ ২৮টি সদস্য দেশ রাজি হলে এমনটা করা সম্ভব৷

এসবি/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন