কাভার্ড ভ্যানে সার্বিয়া সীমান্ত পাড়ির চেষ্টা, আটক ২০ বাংলাদেশি | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 13.06.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

নর্থ মেসিডোনিয়া

কাভার্ড ভ্যানে সার্বিয়া সীমান্ত পাড়ির চেষ্টা, আটক ২০ বাংলাদেশি

সার্বিয়া সীমান্তবর্তী সড়কে চলাচলকারী একটি ট্রাকে লুকিয়ে থাকা ২০ বাংলাদেশিকে আটক করেছে নর্থ মেসিডোনিয়া পুলিশ৷ এর মধ্যে নয়জনই অপ্রাপ্তবয়স্ক৷

সার্বিয়া সীমান্তবর্তী সড়কে চলাচলকারী একটি ট্রাকে লুকিয়ে থাকা ২০ বাংলাদেশিকে আটক করেছে নর্থ মেসিডোনিয়া পুলিশ৷ এর মধ্যে নয়জনই অপ্রাপ্তবয়স্ক৷

সার্বিয়া নর্থ মেসিডোনিয়া সীমান্ত

ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার৷ শনিবার এক বিবৃতিতে নর্থ মেসিডোনিয়া পুলিশ জানিয়েছে, উত্তরের শহর কুমানোভোতে নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবেই যানটিতে তল্লাশি চালান তারা৷ ট্রাকের ভিতরে গাদাগাদি করে থাকা ২০ জনের খোঁজ পান তারা, যাদের সবাই বাংলাদেশি৷ আটককৃতদের মধ্যে নয়জন অপ্রাপ্তবয়স্ক৷ পুলিশ গাড়ির ৪৪ বছর বয়সী মেসিডোনিয়ান চালককে গ্রেপ্তার করেছে৷

পুলিশের ধারণা অভিবাসীরা গ্রিস থেকে নর্থ মেসিডোনিয়ায় এসেছেন৷ তাদেরকে আবার গ্রিসে ফেরত পাঠানোর জন্য গেভগেলিয়া আশ্রয়কেন্দ্রে রাখা হয়েছে৷

ভিডিও দেখুন 21:26

গেমের নাম ইউরোপ

 নর্থ মেসিডোনিয়া পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অপ্রাপ্তবয়স্করা একা নাকি অভিভাবকদের সঙ্গে এসেছেন সে বিষয়ে আলাদাভাবে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে৷

এদিকে পৃথক আরেক অভিযানে স্লোভেনিয়া সীমান্তের কাছে পণ্যবাহী যানে লুকিয়ে থাকা ৬২ জনকে আটক করেছে পুলিশ৷ তাদের মধ্যে ৪৬ জন পাকিস্তানের নাগরিক৷

বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সীমান্ত বন্ধ ও চলাচল নিয়ন্ত্রণ সত্ত্বেও বলকান অঞ্চলে এখনও মানব পাচার গ্যাংগুলো সক্রিয়৷ গ্রিস থেকে ইউরোপের ধনী দেশগুলোতে অভিবাসন প্রত্যাশীরা নর্থ মেসিডোনিয়াকে তাদের ট্রানজিট পথ হিসেবে ব্যবহার করে আসছে৷ গত আট বছরে কয়েক লাখ অভিবাসী এই পথে পাড়ি জমিয়েছেন৷

এফএস/এডিকে (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়