কাবুলে গুরুদ্বারে হামলা, ২৫ জন নিহত | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 25.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

কাবুলে গুরুদ্বারে হামলা, ২৫ জন নিহত

শিখ সম্প্রদায়ের উপাসনালয়ে বুধবার এক হামলায় ২৫ জন নিহত হয়েছেন৷ ইসলামিক স্টেট এই হামলার দায় স্বীকার করেছে৷

বুধবার সকালে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের কেন্দ্রস্থলে শিখ সম্প্রদায়ের এক গুরুদ্বারের উপর হামলা হয়েছে৷ সেখানে হিন্দু সম্প্রদায়ের এক মন্দিরও রয়েছে৷ সশস্ত্র এক হামলাকারী প্রায় দেড়শ’ ব্যক্তিকে জিম্মি করে৷ বন্দুকধারির গুলিতে ২৫ জন নিহত এবং আটজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷ 

আফগানিস্তানের শিখ সম্প্রদায়ের সংসদ সদস্য নরেন্দ্র সিং খালসা সংবাদ সংস্থা ডিপিএ-কে পরিস্থিতি সম্পর্কে জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, বন্দিদের বেশিরভাগই ছিলেন নারী ও শিশু৷ তারা সকালে প্রার্থনার জন্য গুরুদ্বারে এসেছিল৷

আন্তর্জাতিক বািহিনীর সহযোগিতায় কয়েক ঘন্টার প্রচেষ্টায় বন্দিদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয় আফগান বিশেষ বাহিনী৷ ঘটনার পরপরই ইসলামিক স্টেট হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে এএফপি৷ সেখান থেকে মোট আশিজনকে উদ্ধার করা হয়েছে৷  

এর আগে আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তারিক আরিয়ান বলেন, কমপক্ষে চার জন আত্মঘাতী হামলাকারী গুরুদ্বারে প্রবেশ করেছে এবং নিরাপত্তা বাহিনী তাদের সেখান থেকে সরানোর চেষ্টা করছে৷

আফগানিস্তানে সংখ্যালঘু শিখ সম্প্রদায় এর আগেও হামলার শিকার হয়েছে৷ ২০১৮ সালে পূবের নাঙ্গারহার প্রদেশে আইএস হামলায় কমপক্ষে ১৯ জন নিহত হয়েছিল, যাদের মধ্যে শিখই ছিল বেশি৷ সেই ঘটনার পর অনেক শিখ আফগানিস্তান ছেড়ে চলে যান৷ একই বছর জুলাই মাসে জালালাবাদে হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায়ের উপর আত্মঘাতী হামলা ঘটে৷ আনারকলি হোনারইয়ারের মতে, বর্তমানে রাজধানী কাবুল ছাড়াও নাঙ্গারহার ও দক্ষিণ-পূর্বে গানিজ প্রদেশে সব মিলিয়ে শিখ সম্প্রদায়ের হাজারখানেক মানুষ অবশিষ্ট রয়েছেন৷

করোনা ভাইরাসের কারণে আফগানিস্তানও সংকটে পড়েছে৷ এরই মধ্যে সে দেশে কমপক্ষে ৭৪ জন আক্রান্ত হয়েছে৷ সরকার ও প্রশাসন পরিস্থিতি সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে৷ এরই মধ্যে আইএস গোষ্ঠীর হিংসাত্মক কার্যকলাপ চলছে৷ চলতি মাসে এক রাজনৈতিক সমাবেশে আইএস জঙ্গিদের হামলায় ৩২ জন নিহত হয়েছে৷ প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি ও ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহর মধ্যে রাজনৈতিক সংঘাতও অস্থিরতা বাড়িয়ে তুলছে৷ একমাত্র তালেবানের সঙ্গে শান্তি চুক্তি কিছুটা আশার আলো বয়ে আনছে৷

এসবি, এফএস/এসিবি (ডিপিএ, এএফপি) 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন