কান উৎসবজয়ী ছবির প্রশংসায় স্পিলবার্গ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 29.05.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

কান উৎসবজয়ী ছবির প্রশংসায় স্পিলবার্গ

প্যারিসে সেদিন বিক্ষোভ চলছিল সমলিঙ্গের বিয়ের বিরুদ্ধে৷ সেদিনই কিনা কান চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা ছবির স্বীকৃতি দেয়া হলো ‘লা ভি দাদেল’-কে! ছবিটি দেখতে পেরে স্টিভেন স্পিলবার্গ যেন ধন্য!

এবারের কান চলচ্চিত্র উৎসবে জুরিমণ্ডলীর প্রধান ছিলেন স্টিভেন স্পিলবার্গ৷ উৎসবে তাঁকে সবচেয়ে বেশি নাড়া দিয়েছে তিউনিসিয়ায় জন্ম নেয়া ফরাসি পরিচালক আব্দেললতিফ কেশিশের ‘লা ভি দাদেল' (ব্লু ইজ দ্য ওয়ারমেস্ট কালার)৷

১৫ বছর বয়সি এক ফরাসি কিশোরীর সঙ্গে এক মহিলার ভালোবাসাকে ঘিরে নির্মিত এ ছবিতে খুব অন্তরঙ্গ এবং যৌন উত্তেজক কিছু দৃশ্য রয়েছে৷ অভিনেত্রী লি সেদু এবং আদেল এক্সারকোপুলোসের অভিনয় ছিল বাস্তবঘনিষ্ঠ৷ কাহিনি এবং অভিনয়ের এই বাস্তবঘনিষ্ঠতাই মুগ্ধ করেছে হলিউডের তারকা পরিচালক স্পিলবার্গকে৷ পুরস্কার দেয়ার সময় তাই পরিচালক আব্দেললতিফ কেশিশের সঙ্গে দুই অভিনেত্রীকেও ডেকে নিয়েছিলেন মঞ্চে৷ সমকামীদের ভালোবাসাকে উপজীব্য করে নির্মিত ছবিটির তুমুল প্রশংসা তখনই করেছেন তিনি৷

আবদেললতিফ কেশিশও ‘লা ভি দাদেল' নিয়ে আশাবাদী৷ কান চলচ্চিত্র উৎসবে সেরার স্বীকৃতি প্রাপ্তিতেই তৃপ্ত নন ৫২ বছর বয়সি পরিচালক৷ এ স্বীকৃতিকে ফ্রান্সের তরুণ এবং আরব বসন্তের সক্রিয় সংগঠক-কর্মীদের উৎসর্গ করে ছবিটি এ দেশগুলোতে গ্রহণযোগ্যতা পেলে খুশি হবেন বলেও জানিয়েছেন কেশিশ৷ সমকামিতা আরব দেশগুলোতে তো নয়ই, এমনকি ফ্রান্সেও সর্বস্তরে স্বাভাবিকভাবে মেনে নেয়ার পর্যায়ে নেই৷ কান চলচ্চিত্র উৎসবের পুরস্কার বিতরণীর দিনই সমকামীদের বিয়ের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে প্যারিসে৷ সম্প্রতি এক আইনের মাধ্যমে সমলিঙ্গের বিয়েকে স্বীকৃতি দিয়েছে ফ্রান্স৷ এর আগে আরো ১৩টি দেশ সবুজ সংকেত দিয়েছে সমকামীদের বিয়েতে৷

কান চলচ্চিত্র উৎসবে এবার সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ফ্রান্সের বেরেনিস বেশো৷ ৭৬ বছর বয়সে ‘নেবরাস্কা' ছবিতে মদ্যপ পিতার চরিত্র রূপায়ণ করে সেরা অভিনেতার পুরস্কার পেয়েছেন ব্রুস ডার্ন৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন