করোনা স্বাভাবিক হলে গণআন্দোলন: খন্দকার মোশাররফ | মিডিয়া সেন্টার | DW | 07.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

করোনা স্বাভাবিক হলে গণআন্দোলন: খন্দকার মোশাররফ

বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে জনগণ ধীরে ধীরে সংগঠিত হচ্ছে বলে মনে করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন৷ করোনা পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হলে জনগণ রাস্তায় নামবে বলে বিশ্বাস তার৷ 

‘ডয়চে ভেলে খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ ইউটিউব টকশোতে যোগ দিয়ে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বিএনপির বর্তমান রাজনৈতিক কৌশল, রাষ্ট্রপতির সংলাপ, জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক, তারেক জিয়ার দেশে ফেরাসহ নানা বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর দেন৷

‘গণআন্দোলন হবে’

বিএনপি গণআন্দোলন গড়ে তুলতে পারছে না কেন এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি আওয়ামী লীগ সরকারের মেয়াদে গুম, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ও দলটির নেতাকর্মীদের নামে দেয়া মামলার পরিসংখ্যান তুলে ধরেন৷ শক্তিশালী আন্দোলন না হওয়ার জন্য করোনা পরিস্থিতিরও অজুহাত দেন৷

তবে আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস জনগণ আস্তে আস্তে সংগঠিত হচ্ছে৷ এবং জনগণ একদিন যদি এই করোনা পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হয়ে যায় আমাদের বিশ্বাস শুধু বিএনপি নয়, সহযোগী রাজনৈতিক সংগঠনগুলো যারা আছে শুধু তারা নয়, জনগণ এই সরকারকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না, তাই জনগণ রাস্তায় নামবে৷ এদেশে একটি গণআন্দোলন হবে৷ এটা আমাদের বিশ্বাস৷আমরা কখনও মনে করি না বিদেশের কোন শক্তি আমাদের ক্ষমতায় বসাবে বা বিদেশের কোনো শক্তি আমাদেরকে সহযোগিতা করবে৷’’

রাষ্ট্রপতির সংলাপে ‘না’

সম্প্রতি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ৷ আমন্ত্রণ পেলেও এই সংলাপে যোগ দিচ্ছে না বিএনপি৷ এই সিদ্ধান্তের কথা পুনর্ব্যাক্ত করে দলটির অন্যতম জ্যেষ্ঠ নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, তারা এটিকে অর্থহীন সংলাপ মনে করেন৷

তিনি বলেন, ‘‘২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে দুইবার আমরা আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে এ ধরনের সংলাপে অংশগ্রহণ করেছিলাম৷  কিন্তু তারপর দেখা গেছে আওয়ামী লীগের লিস্ট অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন হয়েছে৷ এবং তারপরে নির্বাচন কমিশন সরকারের মুখপাত্র হিসেবে কাজ করেছে৷...সেজন্য বিএনপি এই সংলাপে অংশগ্রহণ করবে না৷’’

আওয়ামী লীগের ‘বোধদয়’ ও খালেদার চিকিৎসা

বতর্মান সরকার প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘‘দেশে গায়ের জোরে স্বৈরশাসন চলছে৷ এটি জনগণের ভোটে জনগণের সরকার নয়৷’’

তবে ‘নির্দলীয়, নিরপেক্ষ, নির্বাচনকালীন সরকারের’ দাবিতে এই মুহূর্তেই কোনো কঠোর কর্মসূচিতে যেতে চায় না দলটি৷ এক্ষেত্রে সরকার নিজ থেকেই তাদের দাবি মেনে নিবে বলে মনে করেন খন্দকার মোশাররফ৷ তিনি বলেন, ‘‘আমাদের বিশ্বাস আওয়ামী লীগের বোধোদয় হবে৷’’

আইন অনুযায়ী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসায় কোন বাধা নেই বলে দাবি করেন এই নেতা৷ তিনি বলেন, আলোচনায় বা বিভিন্ন সভা সেমিনার ও অনুষ্ঠানে তারা তাদের এই দাবি সরকারের কাছে তুলে ধরেছেন৷

জামায়াতের সঙ্গে জোট এখনো আছে

গত নির্বাচনের আগে বিভিন্ন দলের সঙ্গে মিলে বিএনপি ২০ দলীয় জোট গঠন করেছিল৷ সাম্প্রতিক সময়ে তাদের সম্মিলিত কার্যক্রম দেখা না গেলেও ড. খন্দকার মোশাররফ জানান, ২০ দলীয় জোট এখনও সক্রিয় আছে৷ এই জোটে আছে জামায়াতে ইসলামীও, যার শীর্ষ বেশ কয়েকজন নেতার যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসি হয়েছে৷

দলটির সঙ্গে এখন বিএনপির সম্পর্ক আছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি৷’’

তারেক রহমানের দেশে ফেরা

খালেদা জিয়ার অবর্তমানে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে প্রতি সপ্তাহে স্থায়ী কমিটির নেতাদের ভার্চুয়াল বৈঠকের মাধ্যমে বিএনপি তার রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে বলে জানান এই নেতা৷

তিনি বলেন, দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ না থাকায় বর্তমান পরিস্থিতিতে তারেক রহমানের দেশে আসার প্রয়োজন নেই বলে মনে করেন দলের নেতা কর্মীরা৷  বলেন, ‘‘আমাদের নেতাকর্মীদের চিন্তা বর্তমানে এই পরিবেশে তারেক রহমান না এসে লন্ডন থেকে আমাদেরকে যে পরামর্শ দিচ্ছেন, মতবিনিময় করছেন এটা বাংলাদেশে আসলে তার পক্ষে সম্ভব নয়৷  তাই আমরা নীতিগতভাবে বা কৌশলগতভাবে মনে করছি যতদিন পর্যন্ত না বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হবে ততদিন বাইরে থেকে আমাদের নেতৃত্ব দিবেন৷’’

এফএস/জেডএ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়