করোনা সংকটের প্রতীক টয়লেট পেপার | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 28.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস

করোনা সংকটের প্রতীক টয়লেট পেপার

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে একের পর এক দেশ লকডাউন করা হচ্ছে৷ আতঙ্কিত মানুষজন দোকান খালি করে পণ্য কিনে বাড়িতে মজুদ করছেন৷ সবার আগে ফুরিয়ে যাওয়া পণ্যগুলোর একটি টয়লেট পেপার৷

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়৷ ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি কাউন্টার থেকে কফি নেয়ার পর দাম দিতে মানিব্যাগ নয় বরং টয়লেট পেপারের একটি রোল বের করে সেখান থেকে শিট ছিঁড়ে দাম দিচ্ছেন৷

কৌতুক করে ভিডিওটি বানানো হলেও বৈশ্বিক মহামারীতে পরিণত হওয়া করোনা ভাইরাস সংকটের মধ্যে এটাই এখন সত্যে পরিণত হয়েছে৷ টয়লেট পেপার আজ এতটাই দুর্মূল্য বস্তু৷ কেন মানুষ পাগলের মত টয়লেট পেপার কিনছে?

বন-রাইন-জিগ ইউনিভার্সিটি অব অ্যাপলাইড সাইন্সের অধ্যাপক ব্রিটা কান বলেন, ‘‘সর্বোচ্চ অনিয়ন্ত্রিত, সর্বোচ্চ অনিশ্চয়তা এবং অজানা শঙ্কার সর্বোচ্চ মাত্রা থেকে এটা হচ্ছে৷ কেউ জানে না কি ঘটতে যাচ্ছে৷ কিন্তু মানুষ স্বভাবগতভবে সব সময় পরিস্থিতির উপর নিয়ন্ত্রণ ফিরে পাবার চেষ্টা করে৷ তাই যখন মাস্ক আর জীবাণুনাশক শেষ হয়ে গেল তখন মানুষ এমন জিনিস কিনতে শুরু করলো যেটা পচনশীল নয়৷’’

‘‘এ পরিস্থিতে টয়লেট পেপার তাদের সামনে নিরাপত্তার প্রতীক রূপে ধরা দিল৷’’

প্রথম টয়লেট পেপার ব্যবহার শুরু হয়

ষষ্ঠ শতাব্দীর নানা কাহিনীতে চীনে প্রথম টয়লেট পেপার ব্যবহারে কথা জানা যায়৷ ব্রিটিশ সিনোলোজিস্ট জোসেফ নিডহাম চীনের পণ্ডিত ইয়ান ঝিতুইয়ের ৫৮৯ সালে লেখা একটি বইয়ে কথা উল্লেখ করেন৷ যেখানে টয়লেটের পর কাগজ ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে৷

৮৫১ সালে লেখা একটি ভ্রমণ কাহিনীতে বলা হয়, ‘‘তারা (চীনা) পরিষ্কারপরিচ্ছন্নতার বিষয়টিকে খুব একটা গুরুত্ব দেয় না৷ কাজ শেষে (মলত্যাগ) তারা পানি দিয়ে ধৌত না করে শুধু কাগজ দিয়ে নিজেদের মুছে নেয়৷’’

ইউরোপে টয়লেট পেপার

মধ্যযুগে ইউরোপের মানুষ মলত্যাগের পর নিজেদের পরিষ্কার করতে পুরাতন কাপড় বা উল ব্যবহার করতেন৷ কখনো কখনো শ্যাওলা, পাতা এমনকি খড়ও ব্যবহার করতেন৷ ধনীরা অবশ্য সিল্কসহ নানা দামী কাপড় ব্যবহার করতেন৷

ষোড়শ শতাব্দীতে ইউরোপে টয়লেট পেপার হিসেবে কাগজের টুকরা ব্যবহার শুরু হয়৷ ধীরে ধীরে পরিবর্তন-পরিবর্ধনের মাধ্যমে যা আজকের টয়লেট পেপারে পরিণত হয়েছে৷

এসএনএল/কেএম 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন