করোনা রোগীকে জুতোপেটা করার অভিযোগ | বিশ্ব | DW | 24.07.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

করোনা রোগীকে জুতোপেটা করার অভিযোগ

কলকাতায় এক করোনা রোগী ও তাঁর গর্ভবতী স্ত্রীকে জুতোপেটা করার অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে।

ফাইল চিত্র

ফাইল চিত্র

কলকাতার বহুতল ফ্ল্যাটে আক্রান্ত দম্পতি। প্রতিবেশীরা জুতোপেটা করলেন স্বামী এবং গর্ভবতী স্ত্রীকে। তাঁদের অপরাধ, স্বামী করোনা আক্রান্ত। তাই ফ্ল্যাটে থাকা যাবে না। আকস্মিক এই ঘটনার পরে পাটুলি থানায় ইমেলে অভিযোগ দায়ের করেন ওই দম্পতি। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। করোনা রোগীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের ঘটনা ঘটেছে বেঙ্গালুরুতেও।

গত ১৭ জুলাই কলকাতার দক্ষিণ-পূর্ব প্রান্তে পাটুলি অঞ্চলের কেন্দুয়া পাড়ায় এক মধ্যবয়সের ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হন। এলাকায় একটি বহুতলে স্ত্রী এবং ছেলেকে নিয়ে থাকেন তিনি। স্ত্রী গর্ভবতী। স্ত্রী জানিয়েছেন, স্বামী করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে ঘরেই আইসোলেশনে আছেন। তাঁর শরীরে দুর্বলতা থাকলেও আর কোনও রোগের উপসর্গ নেই। এরই মধ্যে দিন কয়েক আগে ছাদে গিয়েছিলেন স্ত্রী। সেখানে তাঁকে দেখে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন ফ্ল্যাটের অন্য বাসিন্দারা। তিনি এর প্রতিবাদও করেন। এরপরেই প্রতিবেশীরা বাড়িতে চড়াও হন বলে অভিযোগ। তাঁদের ফ্ল্যাটে ঢুকে করোনা রোগীকে ছেলের সামনেই জুতো পেটা করা হয় বলে অভিযোগ। আক্রমণকারীদের আটকাতে গেলে গর্ভবতী নারীও আক্রান্ত হন বলে থানায় অভিযোগ করেছেন ওই দম্পতি। একই সঙ্গে তাঁদের অভিযোগ, প্রতিবেশীরা বার বার তাঁদের বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার কথা বলছেন।

পাটুলি থানার পুলিশ জানিয়েছে, তদন্ত শুরু হয়েছে। ওই বহুতলের অন্যান্য নাগরিকদের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। প্রতিবেশীরা অবশ্য জানিয়েছেন, কোনোরকম শারীরিক নির্যাতন করা হয়নি। তবে কথা কাটাকাটি হয়েছে। তাঁদের অভিযোগ, করোনা হওয়া সত্ত্বেও নিয়মিত ছাদে যাচ্ছেন ওই দম্পতি। ব্যবহার করছেন লিফটও। ওই দম্পতির নামে পাল্টা এফআইআর দায়ের করেছে ফ্ল্যাটের কয়েকজন আবাসিক।

এ দিকে বেঙ্গালুরুতে করোনা রোগীর সঙ্গে অমানবিক আচারণের অভিযোগ উঠেছে পুরসভা কর্মীদের বিরুদ্ধেই। অভিযোগ, একটি ফ্ল্যাটে করোনা রোগী আছে শুনে টিনের শিট নিয়ে গিয়ে সেই ফ্ল্যাট এবং পাশের ফ্ল্যাট সিল করে দিয়ে এসেছিলেন ওই পুরসভার কর্মীরা। প্রতিবাদ করেন করোনা রোগীর পাশের ফ্ল্যাটের বাসিন্দা। পুরসভায় ফোন করে তিনি গোটা ঘটনার কথা জানান এবং বলেন, এরপর কোনও কারণে বাড়িতে আগুন লাগলে পালানোও সম্ভব নয়।

বেঙ্গালুরু পুরসভা কর্তৃপক্ষ অবশ্য দ্রুত ওই টিনের শিট খোলার ব্যবস্থা করেছেন। করোনা রোগী এবং তাঁর প্রতিবেশীর কাছে ক্ষমাও চাওয়া হয়েছে।

গোটা দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা যত বাড়ছে, ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে আতঙ্ক। করোনা রোগীদের সঙ্গে অন্যায় ব্যবহার করা হচ্ছে প্রায় সর্বত্র। বেশ কিছু জায়গায় রোগীদের বাড়ি ছাড়া করা হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। তবে প্রশাসন এ বিষয়ে অত্যন্ত কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে। কোথাও করোনা রোগীদের হেনস্থা করার খবর পেলেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করা হচ্ছে।

এসজি/জিএইচ (আবপ, পিটিআই)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন