করোনা প্রতিরোধে সবকিছু করার অঙ্গীকার বিশ্বনেতাদের | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 27.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

করোনা প্রতিরোধে সবকিছু করার অঙ্গীকার বিশ্বনেতাদের

জি-টোয়েন্টি শীর্ষ নেতারা করোনা সংকট মোকাবিলার লক্ষ্যে আর্থিক ও অন্যান্য পদক্ষেপের অঙ্গীকার করেছেন৷ জাতিসংঘের মহাসচিব ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে মানুষের পরাজয় সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছেন৷

বিশ্বের সেরা অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশগুলির গোষ্ঠী জি-টোয়েন্টির শীর্ষ নেতারা করোনা সংকট থেকে বিশ্ব অর্থনীতিকে উদ্ধার করতে পাঁচ লাখ কোটি ডলারেরও বেশি ব্যয় করার অঙ্গীকার করেছেন৷ বেকারত্ব ও আয়ের ঘাটতি প্রতিরোধ করাই হবে মূল লক্ষ্য৷ করোনা ভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় বিশ্বনেতারা ‘যা কিছু প্রয়োজন' সেসব করতে প্রস্তুত৷ বৃহস্পতিবার এক ভিডিও কনফারেন্সে তাঁরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ সেইসঙ্গে করোনা সংক্রমণের মোকাবিলা করতেও তাঁরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংগঠনের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে সবরকম পদক্ষেপ নেবেন বলে জানিয়েছেন৷

২০০৮-২০০৯ সালের আর্থিক ও অর্থনৈতিক সংকটের পর জি-টোয়েন্টি স্তরে এমন ঐক্য দেখা যায়নি৷ সেই সংকটের পর থেকে কোনো শীর্ষ সম্মেলনের ঘোষণাপত্রে এমন মৈত্রী ও সমঝোতার বার্তা শোনা যায়নি৷ বর্তমান সংকটের সময় বিশ্ব বাণিজ্যের পথে যেসব বাধা সৃষ্টি হচ্ছে, সেগুলি দূর করতে যাবতীয় পদক্ষেপ নিতে চান এই গোষ্ঠীর নেতারা৷ তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে অনেক দেশ ওষুধ ও চিকিৎসার সরঞ্জাম রপ্তানি বন্ধ রেখে যে সমস্যা সৃষ্টি করেছে, তা দূর করার কোনো ডাক দেননি তাঁরা৷ শুধু পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে ‘অপ্রয়োজনীয় হস্তক্ষেপ' দূর করার অঙ্গীকার করেছেন তাঁরা৷ সেইসঙ্গে বিশেষ করে আফ্রিকা মহাদেশ ও শরণার্থীদের মতো ঝুঁকিপূর্ণ গোষ্ঠীর জন্য বিশেষ ব্যবস্থার কথা বলেছেন তাঁরা৷ বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের উদ্দেশ্যে বিশ্বনেতারা বিশেষ ব্যবস্থা নেবার আহ্বান জানিয়েছেন৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প এই সম্মেলন সম্পর্কে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, বর্তমান সংকট মোকাবিলায় অসাধারণ ঐক্যবোধ দেখা গেছে৷ তাঁর মতে, প্রত্যেক দেশের ভিন্ন মনোভাব সত্ত্বেও অনেক বিষয়ে যথেষ্ট মিল রয়েছে৷

সরকারি স্তরে উৎসাহ-উদ্দীপনা সত্ত্বেও অনেক বিশেষজ্ঞ জি-টোয়েন্টি নেতাদের অঙ্গীকারের মধ্যে আশার আলো দেখছেন না৷ জাতীয় স্তরে ঘোষিত পদক্ষেপগুলিই নতুন মোড়কে তুলে ধরা হয়েছে বলে সমালোচনা উঠছে৷ জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিয়ো গুতেরেস জি-টোয়েন্টি নেতাদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘‘আমরা এক ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করছি এবং মোটেই জিতছি না৷'' তাঁর মতে, এই মুহূর্তে যুদ্ধকালীন তৎপরতার সঙ্গে ভাইরাস মোকাবিলার পরিকল্পনা করা উচিত৷ সেই লক্ষ্যে পারস্পরিক সমন্বয় আরও বাড়ানো প্রয়োজন

সম্মেলনে ইউরোপীয় নেতারা নিজেদের দেশের কঠিন পরিস্থিতির উল্লেখ করেন৷ বিশেষ করে ইটালি ও স্পেনের গুরুতর অবস্থা দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠছে৷ কিন্তু একই দিনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ নেতাদের টেলিফোন কনফারেন্সে কোনো ফলাফল উঠে আসে নি৷ বিশেষ করে অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সামলাতে সরকারি ব্যয়ভার বাড়ানোর বিষয়ে তাঁরা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন নি৷ ইউরো এলাকার অর্থমন্ত্রীদের হাতেই তাঁরা বিষয়টি তুলে দিয়েছেন৷

 

এসবি/এসিবি (রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন