করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে ‘মিথ্যা তথ্য’ দিচ্ছে সরকার | পাঠক ভাবনা | DW | 30.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মতামত

করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে ‘মিথ্যা তথ্য’ দিচ্ছে সরকার

সরকারি ও বেসরকারি বড় হাসপাতালের সামনে গিয়ে ২৪ ঘন্টা দাঁড়িয়ে থাকলেই বুঝতে পারবেন কী অবস্থা৷ কত শ্বাসকষ্টের রোগীরা ফেরত আসছে৷ ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় এই মন্তব্যটি একজন পাঠকের তবে অন্যদের প্রতিক্রিয়াও প্রায় একইরকম৷

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘‘সাধারণ ছুটিসহ নানা রকম ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে৷ তাপমাত্রা বাড়ছে, হিউমিডিটি হচ্ছে, এ সবের কারণে হয়তো আক্রান্তের সংখ্যা কম৷'' ডয়চে ভেলে থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের এই মন্তব্যের উত্তরে পাঠক আবদুল হাকিম লিখেছেন, বাংলাদেশের করোনা সম্পর্কে মোটেও সঠিক তথ্য বের হয়ে আসছে না, কারণ সরকারের লোকেরা যে তথ্যগুলি দিচ্ছে সবগুলোই অসত্য, মিথ্যাচারে ভরপুর৷ 

আর রাশেদ খান বলছেন বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সরকার ও মিডিয়া মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে৷

এদিকে নিজের অভিজ্ঞতার কথা ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন পাঠক মো.রমিজুল ইসলাম এভাবে, ‘‘দেশের সরকারি ও বেসরকারি বড় বড় হাসপাতালের সামনে গিয়ে ২৪ ঘন্টা দাঁড়িয়ে থাকেন৷ তখন বুঝতে পারবেন কী অবস্থা৷ কত শ্বাসকষ্টের রোগীরা ফেরত আসছে৷ কারণ আইসিইউতে ভর্তি করার ক্ষমতা সবার থাকেনা, মিথ্যা তথ্য দেওয়া হচ্ছে৷''

পাঠক আহমেদুজ্জামানের প্রশ্ন, যেখানে পরীক্ষার জন্য কিটের স্বল্পতা, সঠিক করোনা নির্ণয়ের ব্যবস্থা নেই, চিকিৎসার ক্ষেত্রে চরম হয়রানির শিকার হতে হয়, সেখানে কি করে সঠিক আক্রান্তের চিত্র উঠে আসবে?

আর যদি ১৮ কোটি মানুষের দেশে মাত্র ১১০০/১২০০ মানুষের পরীক্ষা করা হয়, তাহলে রেজাল্ট কি আসতে পারে? জনগণের বিবেকের এই প্রশ্ন পাঠক মোর্তুজা চৌধুরীর৷ আর এত কম সংখ্যক করোনা সংক্রমণ রোগীর পরীক্ষা পৃথিবীর অন্য কোন করোনা আক্রান্ত দেশে হয়েছে বলে পাঠক মোর্তুজা বিশ্বাস করতে পারছেন না৷

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের আসল দৃশ্য বা পরিস্থিতি জানা থেকে আমরা অনেক দূরে-মন্তব্য আবুল হাসনাত মোহাম্মদ ফারুকের৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার