করোনা: দিল্লি এক নম্বরে | বিশ্ব | DW | 25.06.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

করোনা: দিল্লি এক নম্বরে

মুম্বইকে পিছনে ফেলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে দিল্লি এখন ভারতের এক নম্বর শহর। দিল্লিতে ৭০ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত।

ভারতের শহরগুলির মধ্যে এতদিন করোনা আক্রান্তের সংখ্যার হিসাবে এক নম্বরে ছিল মুম্বই। কিন্তু দেশের বানিজ্য রাজধানীকে টপকে গেল দিল্লি। মুম্বইতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯ হাজার ২৫৮ জন। আর দিল্লিতে ৭০ হাজার ৩৯০ জন করোনায় আক্রান্ত।

এটা ঠিক, দিল্লিতে এখন অনেক বেশি করে করোনার পরীক্ষা হচ্ছে। আগে পরীক্ষা হচ্ছিল মাত্র পাঁচ হাজার করে। সেই সংখ্যাটা তিন গুণের বেশি বেড়েছে। এখন নতুন কিট দিয়ে পরীক্ষা করা হচ্ছে।, যার ফলে আধ ঘণ্টার মধ্যে ফলাফল হাতে এসে যাচ্ছে। তবে তারপরেও পরীক্ষার সংখ্যায় মুম্বইকে হারাতে পারেনি দিল্লি। করোনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে মুম্বই এখনও এক নম্বরে। বস্তুত, ভারতের সব চেয়ে বড় বস্তি ধারাভিতে ব্যাপকভাবে করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। করোনায় আক্রান্তদের সঙ্গে সঙ্গে হাতপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর ফলে ধারাভিতে আশঙ্কার তুলনায় অনেক কম লোক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

দিল্লিতে করোনা পরীক্ষা আরও বাড়াবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা যেখানে বেশি হচ্ছে, সেই কনটেনমেন্ট জোনের সব বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সব সদস্যর করোনা পরীক্ষা করা হবে। গত সাত দিনে দিল্লিতে গড়ে তিন হাজার ৩২৫ জন করে মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার দিল্লিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন হাজার ৭৮৮ জন। মুম্বইতে সাত দিনে আক্রান্ত হয়েছেন গড়ে এক হাজার ১৩৪ জন করে। দিল্লিতে এখন ১২ দিনে করোনা রোগীর সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে। মুম্বইতে হচ্ছে ৪০ দিনে।

এক সময় করোনা নিয়ে মুম্বইকে নিউ ইয়র্কের সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছিল। তবে তারা পরিস্থিতি অনেকটা সামলে নিয়েছে। আর লকডাউনের সময় দিল্লিতে করোনার প্রকোপ ছিল কম। কিন্তু আনলক শুরু হতেই পরিস্থিতি বদলে গিয়েছে। দিল্লি এখন দেশের মধ্যে করোনা-রাজধানীরও শিরোপা পেল।

জিএইচ/এসজি(পিটিআই, এএনআই)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন